(দিনাজপুর২৪.কম) বাংলাদেশে ই-বর্জ্য (ইলেকট্রনিক ওয়েস্ট) ব্যবস্থাপনায় কারিগরি সহায়তা দেবে জাতিসংঘের শিল্প উন্নয়ন সংস্থা ইউনিডো। বুধবার শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর সাথে মন্ত্রণালয়ে বাংলাদেশ সফররত ইউনিডোর মহাপরিচালক লি ইয়ংয়ের বৈঠককালে তিনি একথা জানান।

লি ইয়ং জানান, কৃষিভিত্তিক শিল্পের প্রসার, জ্বালানি দক্ষতা বৃদ্ধি ও পরিবেশবান্ধব শিল্পায়নে ইউনিডো সহায়তা করতে আগ্রহী। বাংলাদেশ এখন বিশ্বের উচ্চ প্রবৃদ্ধি দেশগুলোর অন্যতম। বাংলাদেশ দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রে ইউনিডোর সদস্য রাষ্ট্রগুলোর জন্য একটি অনুকরণীয় মডেল। বাংলাদেশে বর্জ্য ও দূষিত পানি ব্যবস্থাপনা ও স্বল্প কার্বন নির্গমনে কারিগরি সহায়তা দিয়ে স্থানীয় শিল্প খাতের প্রতিযোগিতামূলক সক্ষমতা বৃদ্ধি ও টেকসই শিল্প উন্নয়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ইউনিডো কাজ করে যাবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

শিল্পমন্ত্রী সাভার চামড়াশিল্প নগরীর কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা এবং ট্যানারি, মেডিক্যাল, গৃহস্থালী ও শিল্পবর্জ্য হতে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য একটি পরীক্ষামূলক প্রকল্প গ্রহণের জন্য ইউনিডোর মহাপরিচালকের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, শিল্পসমৃদ্ধ মধ্যম আয়ের বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্য অর্জনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। দেশি-বিদেশি উদ্যোক্তাদের জন্য আধুনিক প্রযুক্তিসমৃদ্ধ শিল্প কারখানা স্থাপনের লক্ষ্যে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলও স্থাপন করা হচ্ছে। পরিবেশ সুরক্ষায় এসব অর্থনৈতিক অঞ্চলে গুণগত শিল্পায়ন ও প্রযুক্তি স্থানান্তরে ইউনিডো কারিগরি সহায়তা দিতে পারে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এ সময় ইউনিডোতে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মো. আবু জাফর, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুষেণ চন্দ্র দাস ও বেগম পরাগ, ইউনিডোর পরিচালক সিইয়ং জু, বাংলাদেশে ইউনিডোর স্থায়ী প্রতিনিধি ড. জাকি উজ-জামানসহ শিল্প মন্ত্রণালয় ও ইউনিডোর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে স্থানীয় কৃষিভিত্তিক শিল্পের ভ্যালু চেইন উন্নয়ন, ট্যানারির কঠিন বর্জ্য ও দূষিত পানি ব্যবস্থাপনা, স্বল্প কার্বন নির্গমন, কৃষিপণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ, পাঁজাত পণ্যের বহুমুখীকরণে কারিগরি সহায়তা প্রদানসহ অন্যান্য বিষয়ে আলোচনা হয়। -ডেস্ক