(দিনাজপুর২৪.কম) করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়ানোর জন্য সতর্কতা হিসেবে কিছু নিয়ম করেছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এখন থেকে বলে থুতু লাগালে গুণতে হবে জরিমানা, রয়েছে ‘কোভিড ব্যবস্থা।

আইসিসির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়। এতে বলা হয়,  অনিল কুম্বলের নেতৃত্বাধীন আইসিসির ক্রিকেট কমিটি থুতু ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করার পরামর্শ দিয়েছিল। তাদের দেওয়া সেই প্রস্তাবই মেনে নিয়েছে আইসিসির নির্বাহী কমিটি।

আইসিসির নতুন এ আইনে বলা হয়, কোনো ক্রিকেটার বলে থুতু লাগালে প্রতি ইনিংসে দুইবার সেই দলকে সতর্ক করা হবে। এরপরেও ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলে তখন জরিমানা হিসেবে ব্যাটিং টিমের স্কোর বোর্ডে ৫ রান যুক্ত হবে। থুতু ব্যবহার করলে, সেই বল পরিষ্কার না হওয়া পর্যন্ত খেলা চালু করা হবে না।

করোনার চন্য চালু হলো ‘কোভিড বদলি’। টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন কোনো ক্রিকেটারের যদি করোনা ধরা পড়ে, তবে সেই দল বদলি ক্রিকেটার নিতে পারবে। এক্ষেত্রে নিয়মাবলী হবে ‘কনকাশন সাব’ এর মতো। যে ক্রিকেটারের বদলি আনা হবে, তাকেও একই ক্যাটাগরির হতে হবে। অর্থাৎ ব্যাটসম্যানের বদলি হিসেবে ব্যাটসম্যানই নিতে হবে, বোলার কিংবা উইকেটকিপার নেওয়া যাবে না। তবে এই নিয়ম শুধু টেস্টে প্রযোজ্য। ওয়ানডে আর টি টোয়েন্টিতে বদলি ক্রিকেটারের প্রথা থাকছে না।

আলোচনায় ঠিক হয়েছে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ঘরোয়া আম্পায়ারদের দিয়ে কাজ চালানো হবে। কারণ যাতায়াতের ক্ষেত্রে এখনও অনেক দেশে বিধিনিষেধ আছে। এটা কত দিন থাকবে তা অনিশ্চিত।

আম্পায়ার নির্বাচনের ক্ষেত্রেও আইসিসির নির্দেশনা রয়েছে। স্থানীয় আম্পায়ার দিয়ে ম্যাচ পরিচালনা করা যাবে, তবে সেই আম্পায়ার অবশ্যই আইসিসির এলিট প্যানেলের হতে হবে। আইসিসি মনে করছে অনেক ক্ষেত্রে কম অভিজ্ঞ আম্পায়াররা দায়িত্বে থাকলে ভুল সিদ্ধান্তের পরিমাণ বেড়ে যাবে। এই সমস্যা সমাধানে বাড়ানো হচ্ছে ডিআরএস কিংবা রিভিউয়ের সংখ্যা। টেস্টে এখন থেকে ডিআরএস নেওয়া যাবে ৩ বার। সাদা বলের ক্রিকেটে নেওয়া যাবে ২ বার। -ডেস্ক