(দিনাজপুর২৪.কম) সাগরে মাছ ধরার সময় নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার ২০ জেলে ও মাঝি মাল্লাকে অপহরণের পর মুক্তিপণ দাবি করছে জলদস্যুরা। রবিবার বঙ্গোপসাগরের সাঙ্গু গ্যাসফিল্ড এলাকায় এ অপহরণের ঘটনা ঘটে।হাতিয়ার জাহাজমরা মাছধরা ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি মো. রাশেদ খান জানান, রবিবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত চট্টগ্রাম থেকে আসা কালাম বাহিনীর জলদস্যুরা দমার চরের আনুমানিক ৪০ কিলোমিটার দক্ষিণ পূর্বদিকে সাঙ্গু গ্যাসফিল্ড এলাকায় জেলেদের বেশ কয়েকটি নৌকায় হামলা চালায়। এ সময় দস্যুরা জাহাজমারা ইউনিয়নের আবদুর রাজ্জাকের মালিকানাধীন এফবি নুরজাহান ও মো. মিলন মাঝির মালিকানাধীন এফবি ফারুক নামে ইঞ্জিনচালিত দুটি নৌকার ছয়জন সারেং, মিস্ত্রি ও বাবুর্চিকে ধরে নিয়ে যায়। একই সময় জলদস্যুরা আরও ১৪টি নৌকার সারেংকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বলে জানান তিনি।

নৌকার মালিক ও স্বজনদের অপহৃতদের জনপ্রতি এক লাখ টাকা হারে জলদস্যুরা মুক্তিপণ দাবি করে বলে জানান ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি।

কোস্টগার্ডের হাতিয়া কনটিনজেন্ট কমান্ডার আমজাদ হোসেন জানান, জেলেদেরকে অপহরণ ও বিকাশ নম্বরে মুক্তিপণ দাবির বিষয়টি জানার পর জলদস্যু বাহিনীর অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার চেস্টা চালিয়ে যাচ্ছে কোস্টগার্ড।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল হুদা জানান, হাতিয়ার বাইরে বঙ্গোপসাগরের গ্যাসফিল্ড এলাকায় জেলে অপহরণের খবর পাওয়ার পর থেকে এ ব্যপারে খোঁজখবর রাখছে পুলিশ। (ডেস্ক)