(দিনাজপুর২৪.কম)প্রথমবারের মতো বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে সিংহী দুটি শাবকের জন্ম দিয়েছে। গতকাল ভোরে এদের জন্ম হয়। শাবকসহ মা ভালো আছে। অন্যদিকে, ডিম দেওয়া শুরু করেছে উটপাখি ও ইমু।সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষ জানায়, শাবকসহ আলাদা স্থানে রাখা হয়েছে সিংহীকে। আলাদা আর একটি ঘরে রাখা হয়েছে সিংহটিকে। তিন বছর আগে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে সিংহীটি আনা হয়। তখন বয়স ছিল ১৮ মাস। কর্মকর্তারা জানান, সাফারি পার্কে এবারই প্রথম কোনো সিংহী মা হলো। তাই এর প্রতি সবার মনোযোগ একটু বেশি। দেওয়া হচ্ছে বাড়তি পরিচর্যা ও পুষ্টিকর খাবার। সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে মা ও দুই শাবককে। সিংহীটিকে গতকাল দিনভর জিহ্বা দিয়ে শাবকদের আদর করতে দেখা যায়। পার্কের কর্মকর্তা কৃষ্ণ কমল মজুমদার বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘সিংহ দম্পতির বাচ্চা প্রসবের ঘটনায় পুরো পার্ক জুড়ে আনন্দ বইছে। নিরাপত্তার কারণে বাচ্চা দুটি বিশেষ নজরদারির মধ্যে রাখা হয়েছে। এভাবে সাত দিন রাখা হবে।’বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের অবস্থান ঢাকা থেকে ৩৫ কিলোমিটার উত্তরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশে বাঘের বাজারের কাছে। এখানে ১৩টি সিংহ ও সিংহী রয়েছে। খোলা বাজারে একটি শাবকের দাম কোটি টাকা। এ ছাড়া পার্কে ডিম দেওয়া শুরু করেছে উটপাখি। এখানে মোট ছয়টি উটপাখি রয়েছে। এদের দুটি পুরুষ। পার্কে গত ২০ মে উটপাখি প্রথম ডিম পাড়ে। ডিমগুলো পার্কের ‘এগ ওয়ার্ল্ডে’ রাখা হয়েছে। উটপাখিগুলোও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আনা। প্রতিটির বয়স এখন ৮ বছর। একইভাবে ডিম দেওয়া শুরু করেছে ইমু। পার্কে তিনটি ইমুর মধ্যে একটি পুরুষ। প্রতিটি ইমু বছরে ৮ থেকে ৯টি ডিম দেয়। খাবার হিসেবে ইমুকে কলমি শাক, পালং শাক ও পোলট্রি ফিড দেওয়া হচ্ছে। উটপাখি ও ইমুর দেখভাল করেন ওয়াইল্ড লাইফ অফিসার অনিমেষ রায়। তিনি জানান, ‘উটপাখি তিনটি ডিম দিয়েছে। প্রতিটি উটপাখি ছয়টি ডিম দেবে।’(ডেস্ক)