(দিনাজপুর২৪.কম) পাট-বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী আলহাজ মির্জা আজম এমপি বলেছেন-বঙ্গবন্ধু নিম্নবিত্তদের উন্নয়নে কাজ করতেন। তিনি কৃষি বন্ধবও ছিলেন। যার ফলে বঙ্গবন্ধু কৃষি ঋণ মওকুফ, বিনমূল্যে কৃষিপণ্য, কীটনাশক ও সহজ শর্তে ঋণ প্রদান এবং জেলেদের জন্য পৃথক আইন জাল যার জল তার আইন প্রণয়ন করেন। শেখ মুজিব ছাত্র জীবনে অসহায় সহপাঠিদের নিজের গায়ের জামা, ছাতা ও বই-পুস্তক দিয়ে দিতেন।বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে পিতার ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখে দেশকে এগিয়ে নিতে নি:লসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যেই বাংলাদেশ কৃষি ও মৎস্য খাতে উন্নতির স্বাক্ষর রেখেছে।
মন্ত্রী আজ শনিবার সকাল ১০টায় জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলা পরিষদ হলরুমে জেলেদের নিবন্ধন ও পৃথক পরিচয়পত্র প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। মৎস্য অধিদপ্তর আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন-উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আলী আকবর। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন-অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সাবির্ক) আনোয়ার হোসেন খান, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মনির উদ্দিন, জেলা আ’লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক জাহেদী রবিন, নাংলা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ কিসমত পাশা, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি আ: রাজ্জাক সুজা ও মৎস্যজীবি সমবায় সমিতির সভাপতি ফজলুল হক প্রমুখ। অনুষ্ঠান গ্রন্থনা-উপস্থাপনায় ছিলেন-প্রখ্যাত নাট্যকার আসাদুল্লাহ ফারাজী।(ডেস্ক)