BSL Picস্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মনোরঞ্জনশীল গোপাল এমপি বলেছেন, যারা বাংলাদেশের উন্নয়নকে সহ্য করতে পারেনি তারাই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। তারাই ২১ আগষ্ট বঙ্গবন্ধু কন্যা তৎকালিন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছিল। ২১ আগষ্ট ঘটনার দায় খালেদা জিয়া ও তার পুত্র তারেক রহমানকে নিতে হবে।  ১৫  ও ২১ আগষ্টের শোককে শক্তিতে রপান্তর করে ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে রাজাকার-আলবদর ও দালালদের বিরুদ্ধে আবারো গর্জে উঠতে হবে।
শুক্রবার (২৬ আগষ্ট) বিকেলে দিনাজপুর সদর হাসপাতাল মোড়ে জেলা ছাত্রলীগ আয়োজিত শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মনোরঞ্জনশীল গোপাল এমপি এসব কথা বলেন। ২১ আগষ্ট আওয়ামীলীগের সমাবেশে সন্ত্রাসী হামলায় আইভি রহমানসহ ২৪ জন নিহত হওয়ায় ঘটনায় এই শোক সভার আয়োজন করে জেলা ছাত্রলীগ।
জেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক পারভেজ আহমেদ চৌধুরী পরাগ’র সভাপতিত্বে শোক সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মির্জা আশফাক হোসেন। এ সময় মির্জা আশফাক হোসেন বলেন, যারা বাংলাদেশ চায়নি তারাই সেদিন বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। শুধু তাই নয়, তারাই কারাগারে জাতীয় ৪ নেতাকে হত্যা করেছিল। বাংলাদেশ যেন এগিয়ে যেতে না পারে সে জন্য বেচে বেচে তারা বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছিল। জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের পুরষ্কৃত করেছিল। তার দ্বারা প্রদান হয়, জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধু হত্যার সাথে জড়িত ছিল। তিনি জঙ্গী ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান।
শোক সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক সেলিম আকতার চৌধুরী, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম আলাল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. রবিউল ইসলাম রবি, জেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খলিলুল্লাহ আজাদ মিল্টন, আইনজীবী সমিতির সদস্য এ্যাড. শামসুর রহমান পারভেজ, ছাত্রলীগ নেতা আল মামুন, শেখর চন্দ্র দাস, সোহাগ প্রমূখ। জেলা ছাত্রলীগের সদস্য কেএম মনিরুজ্জামান চৌধুরীর সঞ্চালনায় শোক সভায় ছাত্রলীগ নেতা মানিক, সমিত, বিডি মানিক, মমতাজ, হাবিবসহ অন্যান্য নেতাতকর্মী উপস্থিত ছিলেন।