(দিনাজপুর২৪.কম) বগুড়ার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি স্থিতি অবস্থায় রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি বৃদ্ধি না পেলেও পানি বিপদ সীমার ৫৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বগুড়ার সারিয়াকান্দি, সোনাতলা ও ধুনট উপজেলার বন্যা কবলিত মানুষের দুর্ভোগ বাড়ছে। অনেক এলাকায় খাবার পানির সংকট দেখা দিয়েছে। বাড়ি ঘর ছেড়ে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে আশ্রয় নেয়া পরিবারগুলো গবাদি পশু নিয়ে পড়েছেন বিপাকে। গত দু’দিনে নদী ভাঙ্গনে বন্যা কবলিত সারিয়াকান্দির চরবেষ্টিত ৩টি ইউনিয়নের ৪৮০ টি পরিবার গৃহহীন হয়ে পড়েছে।

জেলা ত্রাণ অফিস জানায়, এপর্যন্ত বগুড়ার ৩ উপজেলার ৯২টি গ্রাম বন্যা কবলিত হয়ে প্রায় ৭২ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে আশ্রয় নিয়েছে সাড়ে ৩ হাজার পরিবার।

সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে সারিয়কান্দি উপজেলা। এখানকার ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে ৯ টি ইউনিয়ন আংশিক ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে বন্যাকবলিত হয়েছে ১১ হাজার ২শ’ ২০ পরিবার। এ পর্যন্ত ১৯০ মেট্রিক টন চাল ও নগদ আড়ই লাখ টাকা বন্যার্তদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রুহুল আমিন জানান, শুক্রবার নতুন করে পানি না বাড়লেও বিপদ সীমার ৫৮ সে.মি. উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে । -ডেস্ক