দয়া রাম (দিনাজপুর২৪.কম) বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ জননেতা এম ইকবালুর রহিম এমপি বলেছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠায় বাংলাদেশ আজ নিন্ম মধ্য আয়ের দেশে পরিনত হয়েছে। জাতীয় শিক্ষা নীতির আলোকে শিক্ষা বিস্তার করা হচ্ছে। আধুনিক শিক্ষার পাশাপাশি ধর্মীয় শিক্ষায় নবদিগন্ত সূচিত হয়েছে। হুইপ ইকবালুুর রহিম এমপি গতকাল সকাল ১১ টায় দিনাজপুর সদরের ২নং সুন্দরবন ইউনিয়নের রামডুবি মোড় সংলগ্ন ঐতিহ্যবাহী ফুলবন ফাজিল সিনিয়র মাদ্রাসার মাঠ প্রাঙ্গনে সরকারের শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্তৃক বরাদ্দকৃত ৪ তলা ভবন বিশিষ্ট ১ তলা “আলহাজ্ এম.আব্দুর রহিম একাডেমিক ভবন” -এর শুভ প্রস্তর ফলক অনুষ্ঠানে অত্র মাদ্রাসার গর্ভনিং বোডির সভাপতি বিশিষ্ট সাংবাদিক আলহাজ্ব দবিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত বক্তব্য পেশ করেন। তিনি বলেন, আজ সারা বাংলাদেশে উন্নয়নের জোয়ার বইছে। বিএনপি জামাত শিবিরের ক্যাডাররা উন্নয়ন ব্যাহত করছে। তারা বিভিন্ন বোর্ড সার্টিফিকেট পরীক্ষায় হরতাল অবরোধ ডেকে নাশকতা করেছে। এ কারনে ছাত্র/ছাত্রীদের সীমাহীন ক্ষতি হয়েছে। এর ফলে এবার এসএসসি-এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল সন্তসজনক নহে।
হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেন,মাদ্রাসার ছাত্র/ছাত্রীদের বিভিন্ন প্রতিযোগীতামূলক পরীক্ষায় কৃতিত্বপূর্ন ফলাফল করতে হবে। এ জন্য পাঠ দানে ও পাঠ গ্রহনে মনোযোগী হতে হবে। তিনি বলেন আমার শ্রদ্ধেয় পিতা আলহাজ্ব এম আব্দুর রহিম সাবেক সংসদ সদস্য ও এমএনএ ছিলেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম জোনাল চেয়ারম্যান, সংবিধানের অন্যতম প্রণেতা এবং বঙ্গবন্ধুর অন্যতম সহচর ছিলেন। তাঁকে  স্মরনীয়-বরনীয় করে রাখার জন্য আপনারা “আলহাজ্ব এম আব্দুর রহিম একাডেমিক ভবনের” যে নামকরন করলেন এ জন্য মাদ্রাসার কর্তৃপক্ষ ও গর্ভনিং বোডিকে ধন্যবাদ জানাই। পাশাপাশি বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম হাফিজ উদ্দিন ফকির যে অক্লান্ত পরিশ্রম করে এই মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেছেন। এই জন্য তার নামে “বীর মুক্তিযোদ্ধা হাফিজ উদ্দিন ফকির একাডেমিক ভবনের” নামকরনের জন্যেও তিনি কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান।
তিনি দুঃখ করে বলেন,২০১৪ ইংরেজী সনের ৫ জানুয়ারীর আগে ও পরে বিএনপি-জামাত-শিবিরের ক্যাডাররা দশমাইল,পুরাতন ভূষিরবন্দর,রানীরবন্দর মহাসড়কের ও রানীগঞ্জ, রামডুবি পাকা সড়কের  বিভিন্ন পয়েন্টে বৃক্ষ নিধন করে অরাজকতা সৃষ্টি করেছিল এবং দেশের বৃক্ষ সম্পদ বিনিষ্ট করেছে। তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা মাদ্রাসার সার্বিক শিক্ষার উন্নয়নের লক্ষ্যে ১২ হাজার কোটি টাকা অনুদান দিয়েছেন। এর ফলে আধুনিক শিক্ষার পাশাপাশি মাদ্রাসা শিক্ষার ব্যাপক সম্প্রসারন লাভ করছে। তিনি আরো বলেন দেশে যাতে কোন জঙ্গি গোষ্ঠী মাথা চাড়া দিয়ে না উঠতে পারে, সে দিকে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।
উক্ত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মোঃ আব্দুল গফুর,বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বিশ্বজিৎ ঘোষ কাঞ্চন,সভাপতি এমদাদ সরকার,জেলা কৃষক লীগ সভাপতি মোঃ মাহাতাব উদ্দিন সরকার,সদর ইউএনও আব্দুর রহমান,সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ ফরিদুল ইসলাম,জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শাহ আলম,অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন উপাধ্যক্ষ মাওঃ আব্দুর রাজ্জাক।