(দিনাজপুর২৪.কম) ২০১৭ সালের চুক্তি অনুযায়ী চলতি বছর ১০ জুনের মধ্যে মৌসুম শেষ হলে বার্সেলোনার অন্যতম নক্ষত্র লিওনেল মেসি ক্লাব ছাড়তে চাইলে রি ট্রান্সফারের মাধ্যমে অন্যদলে যেতে পারতেন। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে তা হয়নি। এদিকে গত সপ্তাহে মেসি ক্লাব ছাড়ার ঘোষণা দেন। গতকাল রোববার থেকে শুরু হওয়া বার্সেলোনা ক্লাবের প্রাক মৌসুম কর্মসূচিতেও যোগ দেননি তিনি। করোনা টেস্টও করাতে যাননি ।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি বলছে, এমন চলতে থাকলে ও মেসির নিজের অবস্থান চূড়ান্ত না হলে যতদিন না পর্যন্ত তিনি বার্সেলোনার কোনো অনুশীলনে যোগ না দেবেন ততদিন তার বেতন কাটা হতে থাকবে। মেসির প্রতিদিনের বেতন বাংলাদেশি মুদ্রায় ১ কোটি ১১ লাখ টাকার মতো (১ লাখ ১০ হাজার ইউরো)। তার বেতন কাটার মতো পরিস্থিতিতে ক্লাব ছাড়া কতটা সহজ হবে এটা একটা বড় প্রশ্ন।

এদিকে বার্সেলোনা ছাড়াও লা লিগা কর্তৃপক্ষও একটি বিবৃতিতে বলেছে যে মেসি চাইলেই ফ্রি ট্রান্সফারে যেতে পারবেন না কোথাও। সেক্ষেত্রে তাকে ছাড়িয়ে নেওয়ার মূল্য বা বাই আউট ক্লজ বহাল থাকবে। মেসির বাই আউট ক্লজ ৭০০ মিলিয়ন ইউরো। কিন্তু মেসিকে পেতে আগ্রহী ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি এখনো বার্সেলোনার সিদ্ধান্তের অপেক্ষা করছে।

এদিকে গুজবের পর গুজব ছড়াচ্ছে মেসির বার্সা ছাড়া ও ম্যানসিটিতে যোগ দেওয়া নিয়ে। ৭৫০ মিলিয়ন ইউরোয় সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার লিওনেল মেসিকে কিনতে যাচ্ছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের অন্যতম শক্তিশালী দল ম্যানচেস্টার সিটি। শুধু তাই নয়, তার সঙ্গে ৫ বছরের চুক্তিও করতে যাচ্ছে ক্লাবটি- এমন গুজবও চলছে।

এই গ্রীষ্মেই নিজের বেড়ে ওঠা ক্লাব বার্সেলোনা ফুটবল ক্লাব ছাড়তে চান আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। গত সপ্তাহে কাতালান ক্লাবটিকে এ কথা জানানোর পর তাকে নিয়ে নানা ধরনের গুজন ছড়াচ্ছে। ম্যানসিটি পাঁচ বছরের জন্য মেসিকে ৭৫০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে কিনতে চায়, এটিও সেই গুজবের মধ্যে একটি।

যদিও কাতালান, স্প্যানিশ ও আর্জেন্টাইন কিছু গণমাধ্যম বলছে মেসিকে দলে ভেড়াতে ম্যানসিটি ৭৫০ ইউরোর সমঝোতা করছে আগামী ৫ বছরের জন্য। তবে খেলাধূলা বিষয়ক সংবাদমাধ্যম ব্লিচার রিপোর্ট বলছে, এটি গুজব। ‘মেসিকে নিয়ে গুজব : ম্যানসিটি ৭৫০ মিলিয়ন ইউরোয় ৫ বছরের একটি মেগা চুক্তি করতে চাচ্ছে’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মেসিকে প্রথম তিন বছরের জন্য ম্যানসিটি ও পরবর্তী সিটির আরেক দল নিউ ইয়র্ক সিটিতে খেলতে চুক্তি করছে। এতে ৭৫০ মিলিয়ন ইউরো খরচ করা হবে। মেসি যদি নিউ ইয়র্ক সিটির জন্য চুক্তিস্বাক্ষর করে, তবে আরও ২৫০ মিলিয়ন ইউরো বোনাস হিসেবে খরচ করা হবে। যদিও পুরো সংবাদটিকে এখনও গুজবই বলছে ব্লিচার রিপোর্ট। -ডেস্ক