মোঃ ওয়াহেদুর রহমান (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরে ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোঃ গোলাম রাব্বী বলেছেন, দূযোর্গ মোকাবেলায় আগাম সচেতনতা ও পূর্ব প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে। দূর্যোগ সাধারণত দুই প্রকার। একটি প্রাকৃতিক দূর্যোগ এবং অপরটি মানবসৃষ্ট দূর্যোগ। প্রাকৃতিক দূর্যোগকে পূর্ব প্রস্তুতি ও আগাম সচেতনতার মাধ্যমে প্রতিরোধ করা যায় এবং মানুষের সৃষ্ট দূর্যোগ মানুষের সতর্কতার মাধ্যমেই প্রতিরোধ করা সম্ভব। প্রতিটি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কালবৈশাখী ঝড়, বন্যা, অগ্নিকান্ড, ভূমিকম্প, বজ্রপাত সমন্ধে জানতে হবে। মনে রাখতে হবে- দূর্যোগের যে কোন ভয় সম্মিলিত প্রচেষ্টায় জয় করতে হবে।
“দূর্যোগের প্রস্তুতি-সারাক্ষণ-আনবে টেকসই উন্নয়ন” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে জাতীয় দূর্যোগ প্রস্তুতি দিবস-২০১৭ উপলক্ষ্যে দিনাজপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত এবং আরডিআরএস বাংলাদেশ, ল্যাম্ব, প্লান, পল্লীশ্রী ও ওয়ার্ল্ড ভিশনের সহযোগিতায় গত ১০ মার্চ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০ টায়  জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। দিনাজপুর জেলা ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কর্মকর্তা মোঃ মোখলেছুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ডেপুটি সিভিল সার্জন শামীম আরা নাজনীন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, দিনাজপুর সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ আলতাফ হোসেন। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, আরডিআরএস বাংলাদেশ দিনাজপুর ইউনিটের কৃষি কর্মকর্তা সৈয়দা নাজমা পারভীন, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিভেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক মোঃ রফিকুজ্জামান, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল আলম, জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের মোঃ রুস্তম-এ-জামান, ল্যাম্ব’র পিআরও এনোস সরেন, ওয়ার্ল্ড ভিশনের কৃষি কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিম। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালয়নায় ছিলেন দিনাজপুর কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ রাহিনুর ইসলাম। আলোচনা সভা শেষে দূর্যোগ প্রতিরোধের উপর অনুষ্ঠিত শিক্ষার্থীদের রচনা প্রতিযোগিতা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।