মোঃ জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (দিনাজপুর২৪.কম) সৈয়দপুর পৌরসভার ব্যস্ততম এলাকা শহীদ ডাঃ জিকরুল হক রোডস্থ একটি ড্রেনের উপর নির্মিত দোকান ১২ লাখ টাকায় বিক্রি হয়েছে। বেশ কয়েক বছর যাবত ড্রেনের উপর কাঠের চৌকি বসিয়ে গোশত বিক্রিকারী এক কসাই ড্রেনটি দোকানের ভিতরে নিয়ে ইটের দেয়াল দিয়ে দোকান ঘর নির্মাণ করে। ওই ঘরটি দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর যাবত ৩ হাজার টাকা মাসিক ভাড়া দেয় ওই কসাই। সম্প্রতি সামান্য বৃষ্টিতেই শহীদ ডাঃ জিকরুল রোডে পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হওয়ার প্রেক্ষিতে এর কারণ অনুসন্ধানে দেখা যায় ওই ড্রেনটি বন্ধ করায় পানি সরবরাহে প্রতিবন্ধকতা হয়েছে। এর ফলে পৌরসভার ওই ড্রেনটি উদ্ধারের জন্য স্থানীয় সাংবাদিক মহলসহ সচেতন ব্যক্তিবর্গ দাবি জানানোর প্রেক্ষিতে ওই দোকানের নিচে যে ড্রেন ছিল তা জানা জানি হয়। এর ফলে নাদিম আশরাফী ওরফে ছোটকা কসাই বেশ বেকায়দায় পড়ে যায় এবং বিভিন্ন জায়গায় দেনদরবার করতে থাকে এবং তখন থেকেই দোকানটি বিক্রির জন্য চেস্টা করে যাচ্ছিল। কিন্তু সাংবাদিকদের চোখ ফাকি দিয়ে কোন ভাবেই পেরে উঠছিলনা। অবশেষে সম্প্রতি ওই  ড্রেনসহ দোকানটি জনৈক ব্যবসায়ীর কাছে ১২ লাখ টাকায় বিক্রি করা হয়েছে বলে জানা গেছে। রেলওয়ের জমিতে পৌরসভার ড্রেন দখল করে নির্মিত দোকান কিভাবে একজন কসাই বিক্রি করতে পারে তা নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্নের উদয় হয়েছে। এ ব্যাপারে সৈয়দপুর পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র জিয়াউল হক জিয়া জানান, যদি বৈধভাবে এলোটমেন্ট নেয়া থাকে তাহলে দোকানটি পৌরসভার অধিনে আসবে। আর যদি জমিদারী জায়গা হয় তাহলে তা বিক্রি করতে পারে। তিনি ড্রেন বিষয়ে কোন মন্তব্য করা থেকে বিরত ছিলেন।