(দিনাজপুর ২৪.কম) বর্তমান খুব শিগগিরই পাটনীতি ঘোষণা করতে যাচ্ছে। বৈচিত্রপূর্ণ ব্যবহারের মাধ্যমে সোনালী আঁশ পাটের গৌরবময় ঐতিহ্য ফিরিয়ে এনে দেশে-বিদেশে এর বাজার স¤প্রসারণের লক্ষ্যে এ খুব তাড়াতাড়ি একটি স্বাধীন পাটনীতি প্রণয়ন করতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। এ প্রসঙ্গে আলাপকালে বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি জানান, মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যে বাংলাদেশ পাটকল কর্পোরেশনের (বিজেএমসি) এবং অন্যান্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের একটি স্বাধীন পাট নীতিমালার খসড়া তৈরি করতে নির্দেশ দিয়েছে। তিনি বলেন, আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বাংলাদেশ একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে এ দৃষ্টিকোণ থেকে জাতীয় অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে পাট খাতের একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। অথচ দেশে পাটের কোনো নীতিমালা নেই।
মির্জা আজম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার ইতোমধ্যে বিভিন্ন সময়ে পাঁচটি বন্ধ জুট মিল পুনরায় চালু করেছে এবং অন্যান্যগুলো পুনরায় খোলার জন্য প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তিনি বলেন, ব্যক্তিগত মালিকানায় নেয়ার পর কিছু জুট মিল মালিক তাদের শর্তাবলী লঙ্ঘন করেছে, তাই সরকার সেগুলো ফেরত নিতে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তিনি বলেন, সোনালী আঁশ পাটের গৌরবময় ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার অনেক কিছু করেছে এবং পাটের ভাবমূর্তি পুনর্জীবিত করতে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিচ্ছে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, পাটের মৌসুমে ন্যায্য মূল্যে কাঁচামাল সংগ্রহ করা হলে সরকারের বার্ষিক ৩০০ কোটি টাকা বাঁচবে। তিনি বলেন, এই খাতকে লাভজনক করতে মৌসুমেই পাট সংগ্রহসহ সব বিষয় নিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সঙ্গে আলোচনা করা হবে। এক সরকারি কর্মকতা জানান, দেশের প্রায় ৩ কোটি মানুষ পাট চাষ এবং উৎপাদনের ওপর নির্ভরশীল। এখন বিজেএমসির ২৬টি জুট মিল চালু আছে ও একটি বন্ধ রয়েছে।(ডেস্ক)