(দিনাজপুর২৪.কম) পাকিস্তান ক্রিকেটের জন্য বড় সুসংবাদ। দেশটিতে ফের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরানোর ব্যাপারে তাদের পাশে দাঁড়ালো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার জন্য পাকিস্তানে বিশ্ব একাদশ পাঠানোর উদ্যোগ নিচ্ছে আইসিসি। পাকিস্তান সুপার লীগের (পিএসএল) দ্বিতীয় আসরের ফাইনাল লাহোরে সুষ্ঠুভাবে আয়োজনের পর তাদের এই মনোভাব। নিরাপত্তার সব শঙ্কা উড়িয়ে এবার পিএসএলের ফাইনাল হয়েছে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে। অনেক বিদেশি খেলোয়াড় সেখানে যাননি নিরাপত্তার শঙ্কায়। তবে ১১জন বিদেশি খেলোয়াড় ফাইনালের জন্য লাহোরে যায়। মাঠে দর্শকদের উপস্থিতি ছিল নজরে পড়ার মতো। কোনো ধরণের দুর্ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয় পিএসএলের ফাইনাল। ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটারদের বহনকারী বাসের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর পাকিস্তানের মাটিতে বড় খেলোয়াড়দের প্রথম উপস্থিতি ছিল এটা। অবশ্য ২০১৫ সালে সীমিত ওভারের সিরিজ খেলে জিম্বাবুয়ে। সেই সিরিজেও কোনো অসুবিধা হয়নি। তবুও শীর্ষ কোনো দেশ পাকিস্তানে সফরের সাহস পাচ্ছে না। তাই পাকিস্তানের ক্রিকেট ফেরানোর জন্য আইসিসি এবার নয়া উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে। পিএসএলের ফাইনালের পরের দিন পাকিস্তানের ক্রিকেট ভক্তরা পেলো সুসংবাদ। আইসিসি পাকিস্তানের টাস্ক ফোর্সের প্রধান জাইলস ক্লার্ক বলেন, ‘পাকিস্তানী দর্শকদের বিশ্বের শীর্ষ খেলোয়াড়দের সরাসরি দেখার প্রত্যাশা পূরণের সুযোগ দিতে চাই।’ জাঙ্গিবাদের কাছে ক্রিকেট হারতে পারে না বলে মনে করেন জাইলস। বলেন, ‘বিশ্ব ক্রিকেটের উচিৎ পাকিস্তানকে সহযোগিতা করা। যারা দেশের বাইরে ‘হোম সিরিজ’ খেলছে। একটি জাতীয় দলের হোম সিরিজ নিজেদের মাঠেই খেলা উচিৎ। মোটকথা, সন্ত্রাসবাদ কখনো জিততে পারে না। পাকিস্তানে ক্রিকেট বন্ধ হতে পারে না।’ বিশ্ব একাদশে কে কে খেলবে সেটা এখনো নিশ্চিত হয়নি। ১৭ সেপ্টেম্বর দুবাইয়ে বিশ্ব একাদশ গঠন করবে আইসিসি। তাদের পাকিস্তানে চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার সম্ভব্য তারিখ ২২, ২৩, ২৯ ও ২৯ সেপ্টেম্বর। -ডেস্ক