(দিনাজপুর২৪.কম) পাকিস্তানে সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা সম্ভবত ক্রিকেট। ইতিহাসে অনেক বিখ্যাত ক্রিকেটার উপহার দিয়েছে দেশটি। কিন্তু সেই দেশে দীর্ঘদিন ধরে নেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট দলকে বহনকারী বাসের ওপর সন্ত্রাসী হামলা হওয়ার পর নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে বড় কোনো দল সেখানে সফর করেনি। শুধু ২০১৫ সালে সংক্ষিপ্ত সফরে যায় জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল। পাকিস্তান বারবার চেষ্টা করেও বড় কোনো দলকে সফরে নিতে পারেনি। কিন্তু এবার সেই পাকিস্তানে সফর করলো বিশ্বের বিখ্যাত কয়েকজন ফুটবলার। পায়ের জাদু দেখিয়ে যারা আমেরিকা-ইউরোপা কাঁপিয়েছেন। এই তালিকায় রয়েছেন ব্রাজিলের রোনালদিনহো, ইংল্যান্ডের রায়ান গিগস এবং গোলরক্ষক ডেভিড জেমস, ফ্রান্সের নিকোলাস আনেলকা এবং রাবর্ত পিরেস, নেদারল্যান্ডসের জর্জ বোয়াটেং ও পর্তুগালের লুইস বোয়া মর্তের মতো খেলোয়াড়রা। তারা সম্প্রতি পাকিস্তানে গিয়ে দু’টি প্রদর্শনী ম্যাচ খেললেন। গত শনিবার করাচি ও রোববার লাহোরে একটি করে প্রীতি ম্যাচ খেলেন তারা। দু’টি ম্যাচেই রায়ান গিগসের ৭ সদস্যের দলকে হারায় রোনালদিনহোর ৭ সদস্যের দল। দুই ম্যাচেই স্টেডিয়ামের দর্শক ছিল কানায় কানায় পূর্ণ। উপচে পড়া দর্শকে মুগ্ধ গিগস ও রোনালদিনহোরা। পাকিস্তানের নিরাপত্তা ব্যবস্থার প্রশংসা করলেন তারা। দেশটির জনগণকে শান্তিপ্রিয় ও ক্রীড়াপ্রিয় বলে অভিহিত করলেন তারা। ফুটবলে মোটেও ভাল অবস্থানে নেই পাকিস্তান। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান এখন ১৯০। কিন্তু পাকিস্তানের অবস্থা তারচেয়েও খারাপ। তারা আছে ২০০তম স্থানে। পাকিস্তান ফুটবলের অবকাঠামোর অবস্থাও করুণ। করাচির ম্যাচটি কোনো ফুটবল মাঠে হয়নি। হয়েছে হকি স্টেডিয়ামের টার্ফে। পাকিস্তান ফুটবলে জোয়ার সৃষ্টির জন্য এই প্রদর্শনী ম্যাচের আয়োজন। আর ফুটবলে উন্নয়নের জন্য অবকাঠামোগত উন্নয়ন আগে প্রয়োজন বলে মন্তব্য করলেন রায়ান গিগস। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক এ খেলোয়াড় বলেন, ‘ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে পাকিস্তানের অবস্থান ২০০তম। ফুটবলে উন্নতি করতে হলে আগে অবকাঠামোগত উন্নয়ন প্রয়োজন। একই সঙ্গে দেশের ফুটবলারদের প্রশিক্ষণের জন্য বড় কোচ নিয়োগ দিতে হবে। এখানে তো ফুটবলের প্রতি মানুষের আগ্রহের কোনো কমতি দেখছি না। বিশেষকরে ফুটবলের প্রতি তরুণদের আগ্রহ ও ভালবাসা দেখে আমি মুগ্ধ।’ এছাড়া পাকিস্তানকে নিরাপদ দেশ উল্লেখ করে গিগস বলেন, ‘আমরা এই বার্তা দিতে চাই যে, সফর করার জন্য পাকিস্তান একটি নিরাপদ দেশ।’ অন্যদিকে ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলার রোনালদিনহোও পাকিস্তানে মুগ্ধ। পাকিস্তান সফর করে তিনি বেশ কয়েকটি টুইট করেন। একটিতে প্রদর্শনী ম্যাচের শিরোপা ধরে রেখে নিজের একটি ছবি পোস্ট করে লেখেন, ‘ধন্যবাদ করাচি, ধন্যবাদ পাকিস্তান।’ তিনি আরেক টুইটে লেখেন, ‘পাকিস্তান একটি শান্তিপ্রিয় ও ক্রীড়াপ্রেমী দেশ। পাকিস্তানের সেনাপ্রধানকে অনেক ধন্যবাদ। ধন্যবাদ পাকিস্তান। আবার দেখা হবে।’  -ডেস্ক