আকতার হোসেন বকুল (দিনাজপুর২৪.কম) জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের জিনাল আশ্রয়ন প্রকল্পে বসবাস করা ভুমিহীন ৩০টি পরিবারের সদস্যদের যাওয়া-আসার রাস্তা নেই বললেই চলে। যে টুকুও আছে তাদিয়ে চলাচল করা কষ্টে ব্যাপার। আশ্রয়ন প্রকল্পে বসবাস করা গরীব লোকদের জন্য যদিও বিদ্যুৎ, সুপেয় পানি ও যাতয়াতের রাস্তার প্রয়োজন। পানি পানের টিউবয়েল ও বিদ্যুৎ সংযোগ থাকলেও রাস্তার অভাবে দীর্ঘ ১৮ বছর যাবৎ কাঁদা-পানির মধ্যেই চলাচল করতে হচ্ছে তাদেরকে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ভোটের আগে রাস্তা তৈরী করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও আজও তা বাস্তবায়ন হয়নি।

পাঁচবিবি-বারোকান্দ্রী পাকা রাস্তার উত্তর পাশে জিনাল আশ্রয়ন প্রকল্পটি অবস্থিত। পাকা রাস্তা থেকে প্রকল্পের দূরত্ব দেড়’শ মিটার আশ্রয়বাসিদের এ পথে যাওয়া-আসা কষ্টের সীমা নেই। সরেজমিনে দেখাযায়, আশরাফ মুন্সি নামের এক বৃদ্ধ আশ্রয়ের বাসিন্দা সাইকেল কাঁধে নিয়ে কাঁদা-পানি পার হচ্ছে। তিঁনি বলেন, শুস্ক ও শীত কালে যদিও জমির আইল দিয়ে রাস্তায় উঠতে পারি কিন্ত বর্ষাকালে আমাদের কাঁদা-পানি অনেক সময় হাঁটু পানির মধ্য দিয়েই চলাচল করতে হয়। জিলান আশ্রয়ন প্রকল্প সমবায় সমিতির সভাপতি দারাজ উদ্দিন বলেন, পুকুর পাড়ে বাস করা সবাই মিলে রাস্তায় মাটি কাটলেও জমির মালিকরা ফসল লাগানো জন্য তাদের জমি প্রস্তুত করার সময় আবার একটু একটু করে কেটে নেয়। রাস্তাটি উচু করে তৈরী করে দেওয়ার জন্য অনেককে বলেছি এবং লিখিত অভিযোগ করেছি আজও কোন ফল পাইনি। মোহাম্মদপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ¦ হাবিবুর রহমান বলেন, রাস্তাটি উচু করে তৈরী করার জন্য কয়েক বার উদ্দোগ্য নিয়েছি কিন্ত জমির মালিকরা জায়গা দিতে চায় না বিধায় রাস্তাটি তৈরী করা সম্ভব হয়নি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নাদিম সারওয়ার দিনাজপুর২৪.কমকে বলেন, জিলান আশ্রয়ন প্রকল্পে বসবাসকারিদের যাতযাতের রাস্তা নেই বিষয়টা আপনার মাধ্যমেই জানতে পারলাম। ওখানে বসবাসকারিদের যাওয়া-আসার জন্য রাস্তা নির্মাণে জন্য উপজেলা প্রশাসন সর্বাত্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলেও, তিঁনি জানান।