-সংগ্রহীত

(দিনাজপুর২৪.কম) পতাকা সরানোকে কেন্দ্র করে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি ও তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন অনেকেই।

শনিবার (৮ জুন) রাতে রাজ্যের উত্তর ২৪ পরগনার সন্দেশখালিতে এ সংঘর্ষ হয়। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার

জানা গেছে, নিহতদের মধ্যে ২৬ বছর বয়সী কায়েম মোল্লা তার তৃণমূলের সমর্থক। বিজেপির দাবি, সংঘর্ষে তার দলের পাঁচ কর্মীরও মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজনের মৃতদেহ পাওয়া গেছে।

উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূলের সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, আমাদের কর্মী সুজিত মণ্ডল, তপন মণ্ডল ও সুকান্ত মণ্ডলের মৃতদেহ পাওয়া গেছে। এছাড়া আরও চারজন নিখোঁজ রয়েছে। তাদের মধ্যে শঙ্কর মণ্ডল ও দেবদাস মণ্ডল নামে দুজন কর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে আমরা জেনেছি।

কিন্তু পুলিশ নিহতের সংখ্যা কম দেখাতে ওই দুজনের মৃতদেহ সরানোর চেষ্টা করছে।

জানা যায়, শনিবার সন্ধ্যায় সন্দেশখালিতে বুথ কমিটির বৈঠক হচ্ছিল। তখন পার্টি অফিসের পতাকা খোলাকে কেন্দ্র করে গণ্ডগোলের সূত্রপাত। যে পার্টি অফিসে বুথ কমিটির বৈঠক হচ্ছিল, কয়েকদিন আগে ওই অফিসেই বিজেপি তাদের দলীয় পতাকা লাগিয়ে দেয়।

সেই পতাকা খুলে ফের তৃণমূলের পতাকা লাগানোর চেষ্টা করতেই বিজেপি কর্মীরা বাধা দেয়। পাল্টা প্রতিবাদ করে তৃণমূল কর্মীরা। এসময় একটি গুলি এসে লাগে কায়েমের গায়ে। সেখানে লুটিয়ে পড়েন তিনি। পরে হাসপাতালে নেয়া হলে তাকে মৃত ঘোষণা করে চিকিৎসকরা। -ডেস্ক