(দিনাজপুর২৪.কম) লবণের দাম বৃদ্ধির গুজবের মধ্যে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, দেশে লবণের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে, কিন্তু অপপ্রচার চালিয়ে অসাধু ব্যবসায়ীরা সুযোগ নিচ্ছে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার তিনি বলেন, অপপ্রচারের কারণে কিছু জায়গায় লবণের দাম বেড়েছে। এসময় দামবৃদ্ধির জন্য সাংবাদিকদেরও দায় রয়েছে বলে মন্তব্য করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

এদিকে দেশে লবণের কৃত্রিম সংকট তৈরি করে যাতে কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে তাই পুলিশ সদস্যদের দোকানে দোকানে গিয়ে তল্লাশি চালানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (অপারেশন) মনিরুল ইসলাম পুলিশ সদস্যদের এই নির্দেশ দেন।

নির্দেশনা পেয়ে থানা এলাকার পুলিশ সদস্যরা বিভিন্ন দোকানে গিয়ে লবণের মজুতের খোঁজখবর নিচ্ছেন।

তাছাড়া লবণের মূল্য বেশি রাখার খবর পেয়ে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের টিম রাজধানীসহ সারাদেশের বিভিন্ন মার্কেটে ও দোকানগুলো অভিযান চালাচ্ছে। যারা লবণের দাম বেশি রাখছে তাদেরকে জরিমানা করে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে।

ধারণা করা হচ্ছে সোমবার (১৯ নভেম্বর) রাত থেকে সিলেট অঞ্চলে লবণ সংকটের গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এরপর মঙ্গলবার সকাল থেকেই রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে বাজারে লবণ বিক্রির পরিমাণ বেড়েছে।

এর প্রেক্ষিতে শিল্প মন্ত্রণালয় বলেছে, দেশে বর্তমানে সাড়ে ছয় লাখ মেট্রিক টনের বেশি ভোজ্য লবণ মজুত রয়েছে। অতএব লবণ সংকটের কোনো কারণ নেই।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশে প্রতি মাসে ভোজ্য লবণের চাহিদা কমবেশি এক লাখ মেট্রিক টন। সেখানে লবণের মজুত আছে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টন। সে হিসাবে লবণের কোনো ধরনের ঘাটতি বা সংকট হবার প্রশ্নই ওঠে না। -ডেস্ক