(দিনাজপুর২৪.কম) অনেকদিন ধরেই নতুন কোনো ছবিতে দেখা যাচ্ছে না বলিউড অভিনেত্রী রানী মুখার্জিকে। বিশেষ করে বিয়ে ও সন্তান জন্ম দেয়ার পর থেকে অভিনয়ে তাকে তেমন একটা পাওয়া যায়নি। তবে অভিনয়ে না পাওয়া গেলেও সম্প্রতি পতিতা হওয়ার আকাঙ্ক্ষা ব্যক্ত করেছেন এ অভিনেত্রী। বিষয়টি অবাক করার মতো হলেও সত্যি। সম্প্রতি স্বামী ও প্রযোজক আদিত্য চোপড়াকে নিয়ে একটি সমাজকল্যাণমূলক কাজে বেরিয়েছিলেন রানী। তাও আবার রাজস্থানের একটি পতিতাপল্লীতে। সেখানে গিয়ে প্রায় ১০০ পতিতার সঙ্গে সময় কাটান রানী। শুধু তাই নয়, রানী ও আদিত্য চোপড়া তাদের পুনর্বাসনে বড় অঙ্কের অর্থ দিয়েছেন এ পল্লীতে। নতুনভাবে জীবন শুরুর জন্যও রানী তাদের উৎসাহিত করেন। এ জনপ্রিয় অভিনেত্রীকে পেয়ে পতিতাপল্লীর মেয়েরাও একটি অন্যরকম দিন অতিবাহিত করেন। এখান থেকে বের হয়েই মিডিয়ার মুখোমুখি হন রানী। এখানে আসা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আসলে পতিতাপল্লীর মেয়েদের দিকে সবাই বাঁকা নজরে তাকান। এটা মোটেও ঠিক নয়। কারণ কেউ শখে এ পেশায় আসেন না। বাধ্য হয়েই তারা এ পথ বেছে নেন। এখানে আসতে পেরে ও তাদের সামান্য সহযোগিতা করতে পেরে কি যে ভালো লাগছে বোঝাতে পারবো না। এটা আমার জীবনের স্মরণীয় একটি দিন। রানী আবেগআপ্লুত কণ্ঠে আরও বলেন, এখানে এসে বলতে পারেন আমারও পতিতা হওয়ার সাধ জেগেছে। আমি কোনো ছবিতে এরকম চরিত্র পেলে খুবই খুশি হবো। কারণ এ পল্লীর মেয়েদের বাস্তব জীবনটা সবার কাছে তুলে ধরা উচিত। তাদের প্রতি সবারই একটি ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি থাকা প্রয়োজন বলে আমি মনে করি।-ডেস্ক