সুকুমার দাস বাবু (দিনাজপুর২৪.কম)  পঞ্চগড় সদর উপজেলার মীরগড় ময়ন উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ের  ৭ম  শ্রেণির এক ছাত্রীকে শরীরে হাত দিয়ে মারপিট ও খারাপ আচরণের  অভিযোগে একই বিদ্যালয়ের শিক্ষক আশরাফুল ইসলামকে ২ মাসের জন্য বরখাস্ত করা হয়েছে। একই সঙ্গে শ্রেণিকক্ষ ও বিদ্যালয়ে প্রাইভেট পড়ানো নিষিদ্ধ করা হয়ছে। গত ১৫ অক্টোবর মীরগড় ময়ন উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ের  সহকারী শিক্ষক আশরাফুল ইসলামের নিকটে একই বিদ্যালয়ে সকালে প্রাইভেট পড়তে এসে ওই ছাত্রী শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম কতৃক হাত দিয়ে মারপিট ও খারাপ আচরণের শিকার হয়। এই ঘটনায় সুষ্ঠু বিচারের দাবীতে প্রধান শিক্ষকের নিকট (১৫ অক্টোবর)  লিখিত অভিযোগ করেছে ওই স্কুলছাত্রী।পরবর্তীতে পারিবারিক সমঝোতায় (২৫ অক্টো-)প্রত্যাহার করে অভিযোগটি।এতে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টি হলে (৩০ অক্টো-)  দুপুরে বিদ্যালয়ে স্থানীয় প্রশাসন সহ শালিসের জন্য বসলে স্থানীয় লোকজন সহ দু’ পক্ষের মাঝে মারপিট হয় এতে বিশৃঙ্খল অবস্থা সৃষ্টি হলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এলাকাবাসীরা বলছে  প্রথমে অভিযোগটি ছিল শ্লীলতাহানীর, গোপনে টাকা দিয়ে অভিযোগটি পরিবর্তন করেছে।স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করলে শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম উপস্থিত সকলের সামনে ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চায়। প্রধান শিক্ষক ও ইউপি চেয়ারম্যান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম কে ২ মাসের সাময়িক বরখাস্তের ঘোষণা দেয়। এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত)  আবু তালেব এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, প্রাইভেট এ  হাত দিয়ে মারপিট করলে ওই ছাত্রীকে খারাপ লাগলে সে অভিযোগ করে আবার সে নিজেই অভিযোগ প্রত্যাহার করেছে। আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার জন্য শিক্ষক আশরাফুল ইসলামকে ২ মাসের সাময়িক বরখাস্ত করি।ধাক্কামারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওরঙ্গজেব জানান, আমি শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম কে ২ মাস সাময়িক বরখাস্তের ঘোষণা দিয়েছি।