সেলিম সোহাগ (দিনাজপুর২৪.কম) পঞ্চগড় জেলার বোদা উপজেলার কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ ইউনিয়নের করতোয়া বাকডোকরা নদীতে সারা বছর পানি থাকায় সৃষ্টি লগ্ন হতে নদীতে ব্রীজ না থাকায় দুপারের প্রায় ৩ লক্ষ মানুষের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। মুক্তিযোদ্ধা চেতনায় বিশ্বাসী কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ, ময়দানদিঘী, বেংহারী, বড়শশী, মাড়েয়া, বামন হাট, চিলাহাটি, ভাউলাগঞ্জ, টেপ্রীগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধাগন আশা করেছিল বাংলাদেশ স্বাধীন হলে আমরা সোনার বাংলা গড়ব। আমরা বৈষম্য শিকার হব না আমাদের বাংলার উন্নয়ন হবে আমরা পাব করতোয়া বাকডোকরা নদীতে ব্রীজ কিন্তু স্বাধীনতা প্রায় সাতচল্লিশ বছর পঞ্চগড় একটি গুরুত্বপূর্ণ ছোট ব্রীজ নির্মাণ না হওয়ায় দুপারের প্রায় ৩ লক্ষ মানুষ হতাশায় দিন কাটছে। ছাত্র ছাত্রীদের স্কুল কলেজ মাদ্রাসা প্রায় ৩০ কি.মি. দুরে গিয়ে ক্লাস করতে হচ্ছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গিয়ে রুগীগন চিকিৎসা নিতে পারছে না। বোদা উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস থাকলেও আগুন নেভাতে আজ পর্যন্ত কালিয়াগঞ্জ বড়শশীতে আসতে পারেনী ফায়ার সার্ভিস। পঞ্চগড় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বর্তমান বাংলাদেশ সরকারের স্ব-রাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সদস্য, ঢাকা জজ কোর্টের আইনজীবি, বোদা দেবীগঞ্জের ২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য এডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন। সংসদ সদস্যের বাড়ী ময়দানদিঘী। তাকে স্থানীয় লোকজন ভ্যান, মোটর সাইকেল, সাইকেল নিয়ে দেখা করতে গেলে করতোয়া বাকডোকরা নদী পারা পারে নৌকা ভাড়া দিতে হয় পঞ্চাশ থেকে একশত টাকা। কালিয়াগঞ্জে ইউনিয়নের গরীব অসহায় মানুষ ইচ্ছা থাকলেও নৌকা ভাড়া আর স্থানের দূরত্ব থাকায় সংসদ সদস্য দেখা করতে পারতেছেন না। গত জাতীয় নির্বাচনে নির্বাচনী মঞ্চে আওয়ামীলীগ নেতা কর্মীসহ এডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন এমপি মহোদয় বলেছিল ক্ষমতা আসলে ব্রীজটি নির্মাণ করা হবে কিন্তু দুবার ক্ষমতায় থাকলেও ব্রীজ হয় নি। এলজিইডি পঞ্চগড় একজন কর্মকর্তা বলেন ব্রীজ নির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে চারবার ফাইল প্রেরণ করি। সরকারের উচ্চ মহলের তকদির গুরুত্ব না থাকায় ব্রীজটি নির্মাণ করা সম্ভব হচ্ছে না। বোদা দেবীগঞ্জ উপজেলার মানুষের প্রাণের দাবী করতোয়া বাকডোকরা ব্রীজটি দ্রুত নির্মাণ করে নির্বাচনী ওয়াদা পালন করা হউক। ব্রীজ নির্মাণ করতোয়া বাকডোকরায় ব্রীজটি না হলে পরবর্তী নির্বাচনে প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করেন সচেতন মহল।