(দিনাজপুর২৪.কম) নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভায় ক্ষেত থেকে কামাল উদ্দিন নামের এক যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশের গুলিতে তার মৃত্যু হয়েছে বলে নিহতের পরিবার দাবী করলেও তা অস্বীকার করছে পুলিশ।  আজ রবিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে পৌরসভার করিমপুর গ্রামের মিয়া বাড়ির পার্শবর্তী ক্ষেত থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত মো. কামাল উদ্দিন ওই গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে। সে পেশায় একজন সিএনজি অটোরিকশা চালক। নিহতের পরিবারের লোকজন অভিযোগ করে বলেন, শনিবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে সিএনজি অটোরিকশা চালক কামাল তার গাড়িটি রেখে বাড়ির পার্শবর্তী সুজনের চা দোকানে এসে চা খাচ্ছিল। এসময় একটি সিএনজি যোগে চৌমুহনী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই জসিমের নেতৃত্বে ৩জন পুলিশ ওই স্থানে আসে। পরে কামালকে দোকানে বসে থাকতে দেখে এসআই জসিম দাঁড়া বলে পেছন থেকে ডাক দেয়। এতে ভয় পেয়ে সে দোকান থেকে দৌঁড়ে ভৌতলির বাড়ির একটি ক্ষেতে গিয়ে পড়লে এসআই জসিম তাকে লক্ষ্য গুলি করে। পরে সকালে পরিবারের লোকজন গিয়ে পুলিশের উপস্থিতিতে ওই ক্ষেত থেকে তার লাশ উদ্ধার করে।
চৌমুহনী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (এসআই) জসিম উদ্দিন অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, শনিবার রাতে আমাদের কোন পুলিশ করিমপুরে যায়নি। জেলা পুলিশ সুপার ইলিয়াস শরীফ জানান, পুলিশের কাজ গুলি করা নয়। তবে তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনানুগ ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান। -ডেস্ক