(দিনাজপুর২৪.কম)  নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার ভোগডাবুড়ী, কেতকীবাড়ী, জোড়াবাড়ী, গোমনাতী ইউনিয়ন সহ চিলাহাটি এলাকার হাজার হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহকরা আজ এই রমজান মাসে বিদ্যুৎ বিভাগের লুকোচুরি খেলায় নাঝেহাল হয়ে পড়েছে । বিশেষ করে ভেপসা গরমে জন জীবনের অবস্থা দুর্বিসহ হয়ে পড়েছে। জানা গেছে, ডোমার বিদ্যুৎ বিতরণ কেন্দ্রের আওতাধীন চিলাহাটিসহ ভোগডাবুড়ী, কেতকীবাড়ী, জোড়াবাড়ী ও গোমনাতী ইউনিয়নের হাজার হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহকগণ দীর্ঘ দিন যাবত এই লোড শেডিং এর প্রতিবাদ করে আসছিল। ইতিমধ্যে কয়েকবার এলাকার বিদ্যুৎ গ্রাহরা গণআন্দোলনের ডাক দিলে সমাবেশের পূর্বেই ডোমার বিদ্যুৎ বিভাগের আবাসিক প্রকৌশলীর বিশেষ অনুরোধে সেই আন্দোলন প্রত্যাহার করে এলাকার মানুষ। দুই-এক দিন নিয়মিত বিদ্যুৎ থাকলেও তার পর শুর হয় আবার সেই অনিয়মতান্ত্রিকভাবে লোডশেডিং-এর পালা। বিদ্যুৎ বিভাগ এই এলাকাসমুহে বিদ্যুতের চাহিদামত  বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে না পারলেও নতুন সংযোগের ব্যাপারে বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ বসে নেই। প্রতিদিন তারা বিভিন্ন এলাকায় নতুন বিদ্যুতের সংযোগ দিয়েই চলছে। বর্তমানে এই এলাকায় ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১০ ঘন্টাও বিদ্যুৎ থাকে না,। তার উপর ঘন ঘন লোডশেডিং-এ পড়ে এলাকার বিদ্যুৎ গ্রাহকগণ এই রমাজান মাসে নাঝেহাল হয়ে পড়েছে। যে সময় টুকু থাকে তাও লো ভোল্টেজ।  অপরদিকে রোজাদারগণ ইফতারী পর তারাবির নামাজের প্রস্তুতি নিলেই তার পূর্বেই বিদ্যুৎ চলে যায়। অথচ বর্তমান সরকার এই রমজান মাসকে সামনে রেখে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় ঘোষণা দিয়েছিল যে, রমজান মাসে বিদ্যুতের লোডশেডিং থাকলেও তারাবি, শেহেরী ও ইফতারীরর সময় বিদ্যুৎ ঠিক থাকবে। কিন্তু ডোমার বিদ্যুৎ বিতরণ কেন্দ্র আবাসিক প্রকৌশলী বর্তমান সরকারের সেই নির্দেশকে অমান্য করে তারাবি, শেহেরী ও ইফতারীরর সময় বিদ্যুতের লোডশেডিং-এর আওতায় ফেলে রোজাদারগণকে জিম্মি করে রেখেছে।

(আবু ছাইদ, ডোমার, নীলফামারী)