মোঃ জাকির হোসেন (দিনাজপুর২৪.কম) জমি সংক্রান্ত বিবাদে উভয়পক্ষের সংঘর্ষে নারী সহ ২২ জন আহত হয়েছে। শনিবার (২৯ আগস্ট) দুপুরে নীলফামারী জেলা সদরের রামনগর ইউনিয়নের বাহালীপাড়া গ্রামের এ ঘটনায় একে অপরের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করলে দুই পরিবারের চারটি ঘর,আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়েছে। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস ঘটঁনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি এবং আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। আহতদের মধ্যে একজন কে আশংকাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও বাকী ২১ জন কে নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
রামগঞ্জ ইউনিয়নের তিন নম্বর ওয়াডের ইউপি সদস্য আসাদুল ইসলাম জানান  গ্রামের মৃত আছিমুদ্দিনের ছেলে আলী হোসেনের সাথে নমির উদ্দিনের ছেলে আজিজার রহমানের মধ্যে সাড়ে ৭ বিঘা জমি নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে উভয়পক্ষের আদালতে দুইটি মামলা বিচারাধীন। এ অবস্থায় বিরোধপূর্ন জমিতে আলী হোসেন হালচাষ করতে গেলে আজিজার রহমান বাঁধা দেয়। এরপর উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, হামলা ও সংঘর্ষে বাড়িঘর ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। অগ্নিসংযোগে আলী হোসেনের দুটি ঘর ও আজিজার রহমানের দুইটি ঘর ও ঘরে থাকা আসবাবপত্র ভস্মিভুত হয়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের নারী সহ ২২ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে আজিজার রহমান সহ তার পক্ষের ১৩ জন ও অপর পক্ষ আলী হোসেন (৫০) সহ ৯ জন রয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি এবং আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।
নীলফামারীর থানার এসআই আসাদুজ্জামান আসাদ জানান, পরিস্থি’তি নিয়ন্ত্রনে এনে উভয়পক্ষের নারী সহ আহত ২২ জন কে নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডাঃ হাছিনুর রহমান জানান আহতদের মধ্যে  গুরুতর  আজিজার রহমান (৬৫) কে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত ও বাকী ২১জনকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নীলফামারী থানার ওসি শাহজাহান পাশা বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। নীলফামারী ফায়ার সার্ভিসের টিম লিডার ফরহাদ আলম জানান, খবর পেয়ে একটি ইউনিট গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনায় গ্রামের আরো ১০ পরিবারের ঘরবাড়ি রক্ষা পায়।