(দিনাজপুর টোয়েন্টিফোর ডটকম) কয়েক বছর ধরেই পরিকল্পনা চলছে যে, ইউরোপের সেরা ক্লাবগুলো মিলে চ্যাম্পিয়নস লিগের বদলে আলাদা একটা টুর্নামেন্ট করবে ‘ইউরোপিয়ান সুপার লিগ’ নামে। সেই টুর্নামেন্টে শুধু গুটিকয়েক বড় দলই খেলবে।

চ্যাম্পিয়নস লিগের জন্য সেটি ভালো খবর নয়। ভালো নয় ইউরোপজুড়ে লিগগুলোর জন্যও। ছোট যে দলগুলো ইউরোপের বড় টুর্নামেন্টে এসে চমক দেখানোর আশায় থাকে, তাদের সে সুযোগ হাতছাড়া হবে এই লিগের ফলে; কিন্তু ফিফা সেটি হতে দিতে রাজি নয়। সে কারণেই গতকাল এক বিবৃতিতে ফিফা হুশিয়ারি দিয়ে রেখেছে- যেসব ক্লাব এই বিকল্প টুর্নামেন্টে খেলবে, সেই ক্লাবগুলো এবং তাদের খেলোয়াড়দের ফিফা ও এর মহাদেশীয় অঙ্গসংগঠনগুলো আয়োজিত কোনো টুর্নামেন্টে খেলতে দেওয়া হবে না। নিষিদ্ধ হবে সেই ক্লাবগুলো, নিষিদ্ধ হবেন সেই খেলোয়াড়রা।

সেকারণেই প্রশ্নটা উঠছে- আইসিএলে খেলে বাংলাদেশের আফতাব আহমেদ, হাবিবুল বাশার কিংবা শাহরিয়ার নাফীসদের যে পরিণতি হয়েছিল; লিওনেল মেসি, নেইমার কিংবা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোদেরও কি সেই পরিণতি হবে? ২০২২ বিশ্বকাপে খেলতে পারবেন না এই মহাতারকারা?

ইউরোপের বড় ক্লাবগুলোও ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফা আর বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফার শাসানি উপেক্ষা করে এই টুর্নামেন্ট আয়োজনের স্বপ্নে মত্ত। আর টুর্নামেন্টটা শেষ পর্যন্ত সত্যিই আয়োজন করা হলে আর ফিফার হুশিয়ার বাস্তব রূপ পেলে সে ক্ষেত্রে মেসি-নেইমার-রোনালদোদের পরিণতি তো আফতাব-হাবিবুলদের মতো হতেই পারে! -ডেস্ক রিপোর্ট