(দিনাজপুর২৪.কম) মহামারি আকার ধারন করেছে করোনো। দিন দিন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলছে। দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিলও। লকডাউনে কর্মহীন হয়ে পড়ছেন শ্রমজীবি অনেক মানুষ। এসব মানুষদের সাহায্যে এগিয়ে আসছেন অনেকেই। বাংলাদেশের অনেক ক্রিকেটারই নিজ নিজ জায়গা থেকে দুস্থ-অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। নিজের নামে ফাউন্ডেশন গড়ে অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন সাকিব আল হাসান। দুদিন আগে ফেইসবুক লাইভে এসে বাংলাদেশ অলরাউন্ডার জানান, দুস্থ মানুষদের সাহায্যে ক্রিকেটাররা তাদের ব্যাট, জার্সি, ক্রিকেট সামগ্রী নিলামে তুলতে পারে।

এর পরই নিজের সবচেয়ে প্রিয় ব্যাটটা নিলামে তোলার কথা ভাবছেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীম।

যে ব্যাটটি দিয়ে ২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি।

বাংলাদেশে নিলামের কোনো প্ল্যাটফর্ম না থাকায় বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত হয়নি বলে জানিয়েছে মুশফিকের মার্কেটিং এজেন্ট কোম্পানি নিবকো। নিবকোর এক কর্মকর্তা মানবজমিনকে জানান, বাংলাদেশে নিলামের কোনো প্ল্যাটফর্ম নেই। প্রক্রিয়াটি বেশ জটিল। আমরা ভাবছি কীভাবে নিলামে তুললে সুবিধা হবে। সেটা নিয়ে কাজ করছি। নিলামটি অনলাইনেও হতে পারে’।

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ অংশ লেখা হয়েছে এই ব্যাট দিয়ে, এমন একটি ব্যাটের প্রত্যাশিত মূল্য নিশ্চিত করতেই ভিত্তিমূল্য রাখার চিন্তা করছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা। কোম্পানিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, কেবল মুশফিকই নন, আরও কয়েকজন ক্রিকেটার তাদের ক্রিকেট সামগ্রী নিলামে তোলার চিন্তা-ভাবনা করছেন। তবে তারা যে এটা করতে যাচ্ছেন এটার নিশ্চয়তা দিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নিবকোর ওই কর্মকর্তা।

করোনা মোকাবিলায় এরআগে নিজের বিশ্বকাপ ফাইনালের জার্সি নিলামে তোলেন ইংল্যান্ডের ক্রিকেটার জস বাটলার। উইকেটরক্ষক এই ব্যাটসম্যানের জার্সিটি ৬৫ হাজার পাউন্ডে (৬৮ লাখ ৭ হাজার টাকা) বিক্রি হয়। -ডেস্ক