আব্দুল আজিজ,(দিনাজপুর২৪.কম)নাটোরের বৃহত্তর চলনবিলের গুরুদাসপুর-তাড়াশ মৈত্রী সড়ক বর্ষায় প্লাবিত হওয়ায় নাটোরের তাড়াশ উপজেলার সঙ্গে গুরুদাসপুর উপজেলার সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, গুরুদাসপুরের চাঁচকৈড় নন্দকুজা ব্রীজ থেকে আনন্দনগর, খুবজীপুর, বামনবাড়িয়া, বিলসা, রুহাই, কুন্দইল, মাকর্ষণ, কামার্ষণ ও মাগুরাবিনোদ হয়ে অগণিত অটোরিকসা-ভ্যান, ট্রলি-টেম্পু ও সিএনজি প্রতিনিয়ত যাত্রী ও মালামাল নিয়ে তাড়াশ উপজেলা সদরে যাতায়াত করতো। মাঝখানে বিলসার ‘মা জননী সেতু’ ওই সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থায় এক ঐতিহাসিক ভূমিকা রাখলেও এবারের বর্ষায় গুরুদাসপুর-তাড়াশ মৈত্রী সড়কের কুন্দইল পয়েন্টে ৩০০ মিটার সড়ক পানিতে নিমজ্জিত হওয়ায় এক সপ্তাহ যাবৎ ওই সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ফলে সমস্ত পরিবহন সরাসরি যাতায়াত বন্ধ হওয়ায় বিচ্ছিন্ন হয়েছে জনচলাচল। এতে ভোগান্তির শিকার হয়েছে বিলাঞ্চলের লাখো মানুষ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিলসা থেকে কুন্দইল পর্যন্ত ডুবো সড়কটি নির্মিত হওয়ায় বর্ষার প্রারম্ভেই চার কিলোমিটার পাকা সড়ক পানিতে নিমজ্জিত হয়ে জনচলাচল বিচ্ছিন্ন হয় প্রতিবছর।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করলে খুবজীপুর ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম দোলন ও দিঘাসগুনার সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান জানান, বিলসা থেকে কুন্দইল পর্যন্ত উচু সড়ক নির্মিত না হওয়া পর্যন্ত এলাকাবাসীর এই সড়ক ভোগান্তির শেষ হবে না।