(দিনাজপুর২৪.কম)ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো বার্সেলোনা ছেড়েছেন, তাও প্রায় দুই বছর হতে চলল। স্প্যানিশ লিগে এখন মেসির সরাসরি প্রতিপক্ষ নেই বললেই চলে। রোনালদোকে মেসি ‘মিস’ করেন কি না, জানা যায়নি। তবে কাল রাতে যা করলেন, খোলা চোখে মনে হতেই পারে, রোনালদোর ‘অভাব’ অনুভব করছেন এই তারকা। না হয় সব বাদ দিয়ে ‘নতুন রোনালদো’ নামে খ্যাত তারকার সঙ্গেই কেন লাগতে যাবেন তিনি!

হোয়াও ফেলিক্সকে বলা হচ্ছে নতুন রোনালদো। খেলেনও পর্তুগালের হয়ে। গত মৌসুমে বেনফিকার হয়ে আলো ছড়িয়ে এ মৌসুমে ১১৩ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে নাম লিখিয়েছেন ফেলিক্স। এ মৌসুমেই অ্যাটলেটিকো ছেড়ে দলের সবচেয়ে বড় তারকা আতোয়াঁ গ্রিজমান যোগ দিয়েছেন মেসিদের সঙ্গে, সেই গ্রিজমানের জায়গাতেই মূলত ফেলিক্সকে আনা হয়েছে। এই ফেলিক্সের সঙ্গেই কাল সেমিফাইনালে কথা-কাটাকাটি হয়েছে মেসির।

ঘটনার শুরু প্রথমার্ধের শেষ দিকে। দেখা গেল, হাঁটতে হাঁটতে মেসিকে কিছু একটা অভিযোগ করলেন ফেলিক্স। সেটা শুনে মেসি দাঁড়িয়ে গেলেন, কিছু একটা বললেন। তা দেখে মেসির পথরোধ করে দাঁড়িয়ে গেলেন ফেলিক্স, জবাবে তিনিও কিছু একটা বললেন। দুজনই মুখোমুখি, শুধু হাতাহাতি হওয়ার অপেক্ষা। অবস্থা খারাপের দিকে এগোচ্ছে, বুঝতে পেরে বার্সেলোনার জেরার্ড পিকে আর লুইস সুয়ারেজ, আর ওদিকে অ্যাটলেটিকোর টমাস পার্টি আর আলভারো মোরাতা এসে দুজনকে আলাদা করলেন। লুইস সুয়ারেজ আবার এক কাঠি সরেস, এসে ফেলিক্সকে একটা ধাক্কা দিলেন। সেটা দেখে অ্যাটলেটিকোর স্টেফান সাভিচ আর টমাস পার্টিও পেছন থেকে সুয়ারেজকে ধাক্কা দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন ‘লড়াই’য়ে ফেলিক্স একা নন। মেসি-ফেলিক্সকে আলাদা না করলে যে হাতাহাতি হয়ে যেত, সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখছে না।

তবে শুধু এটাই নয়, গতকাল বার্সেলোনার লেফটব্যাক জর্ডি আলবার সঙ্গেও বচসায় লিপ্ত হয়েছিলেন ফেলিক্স। জর্ডি আলবা কিছু একটা বলেছিলেন আঙুল তুলে, সেটার জবাবে এক ঝটকায় নিজের হাত দিয়ে আলবার আঙুল সরিয়ে দেন ফেলিক্স।

ম্যাচের শেষ হাসিটা কিন্তু হেসেছেন ফেলিক্সই। ৩-২ গোলে বার্সাকে হারিয়েছে অ্যাটলেটিকো। ক্লাবটির পক্ষে গোল তিনটি করেন কোকে, মোরাতা ও আনহেল কোরেয়া। বার্সেলোনার পক্ষে দুটি গোল গ্রিজমান ও মেসির। পাঁচটি গোল হয়েছে খেলার দ্বিতীয়ার্ধে। প্রথম গোলটি ছিল অ্যাটলেটিকোর। এরপর দুটি গোল করে এগিয়ে ছিল বার্সেলোনা। কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি কাতালান ক্লাবটির।-ডেস্ক