(দিনাজপুর২৪.কম) বরিশালে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, দুদক চায় সরকারী বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তারা আইন-কানুন, বিধি-বিধান, নিজেদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করুক। তাহলে অভিযোগও উঠেবেনা আর   মামলাও হবেনা। কারণ দুর্নীতি মামলা হচ্ছে, ‘ক্যান্সারের মতো’। এর কোন শেষ নেই। দুর্নীতি মামলার কারণে নিজের জীবন, সম্পত্তি, একটি পরিবার, একটি বংশ ধ্বংস হয়ে যায়, পথে বসিয়ে দেয়।

‘দুর্নীতিমুক্ত সরকারি সেবা’, দুর্নীতির অভিযোগের প্রকৃতি বিষয়ক মাঠ পর্যায়ের বিভাগীয় কর্মকর্তাগণের সাথে আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন দুদক চেয়ারম্যান।

বিভাগীয় কমিশনার মো. শহীদুজ্জামানের সভাপতিত্বে আজ মঙ্গলবার সকালে বরিশাল জেলা প্রশাসনের হলরুমে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার এস এম রুহুল আমীন, রেঞ্জ ডিআইজি শেখ মারুফ হাসান, দুদকের বিভাগীয় পরিচালক মো. আক্তারুজ্জামান, সড়ক ও জনপথ বিভাগ বরিশাল জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. আশরাফুল আলম, পানি উন্নয়ন বোর্ড বরিশাল সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. রমজান আলী এবং জেলা প্রশাসক ড.   গাজী মো. সাইফুজ্জামান। এছাড়া বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের বিভাগীয় এবং জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

এসময় দুদক চেয়ারম্যান আরো বলেন, দুদকের বিরুদ্ধেও অভিযোগ পাই। দুদকের লোকজন ঘুষ খেয়ে অন্যায়ভাবে মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়, ভয় দেখায়, দুর্ব্যবহার করে, ডেকে নিয়ে অহেতুক ঘন্টার পর ঘন্টা বসিয়ে রাখে। আমরা কোন কিছুই লুকাই না। এখন আর কোন কিছু লুকানোর সময়নেই। এখন জেগে ওঠার সময়।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, দুদক মনে করছে, কোন কোন জেলায় দুদকের অফিস বন্ধ করে দিতে হবে। কারণ, সেসব জেলায় কোন অভিযোগ আসেনা। দুদক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কোন কাজও নেই। মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে দুদক কাজ করতে চায় উল্লেখ করে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, দুর্নীতির উৎসগুলো বন্ধ করতে হবে। দুদক দুর্নীতি দমনের চেয়ে প্রতিরোধে বেশি মনোযোগী হতে চায়। যাতে যারা দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েছেন, তারা যেন সরকারী আইনকানুন ও নিয়ম-নীতির মধ্যে ফিরে আসে।  -ডেস্ক