মোঃ ইউসুফ আলী (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর আহমেদ হোসেন বোর্ডের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীকে নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করার আহবান জানিয়ে বলেছেন, এই শিক্ষা বোর্ডকে একটি দূর্নীতিমুক্ত ও আদর্শ শিক্ষা বোর্ড হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। এখানে আগত শিক্ষকরা যেন বোর্ডের কোন কর্মকর্তা-কর্মচারীর দ্বারা হয়রানীর শিকার না হন সেদিকে সবাইকে লক্ষ্য রাখতে হবে। এই এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা কোন অবস্থাতেই নষ্ট হতে দেয়া যাবে না।
২২ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার শহরের বালুবাড়ীস্থ গ্রীন ভিউ কমিউনিটি সেন্টারে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড আয়োজিত মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড দিনাজপুর কর্মচারী ইউনিয়নের দ্বি-বর্ষিক নির্বাচনে নব-নির্বাচিত প্রথম কমিটির শপথগ্রহণ ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের নবনির্বাচিত সভাপতি মোঃ মাসুদ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোঃ তোফাজ্জুর রহমান, কলেজ পরিদর্শক মোঃ ফারাজ উদ্দীন তালুকদার, বিদ্যালয় পরিদর্শক রবীন্দ্র নারায়ন ভট্টাচার্য্য ও দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য সচিব বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ মো. লৎফর রহমান মন্ডল। অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল, শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, শিক্ষা বোর্ডের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. আরিফুল ইসলাম, সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. রাকিবুল ইসলামসহ বোর্ডের অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা শেষে বোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর আহমেদ হোসেন কর্মচারী ইউনিয়নের নবনির্বাচিত কমিটির সদস্যদের শপথবাক্য পাঠ করান এবং বোর্ডের পক্ষ থেকে নির্বাচিত কমিটির সকলকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।  উল্লেখ্য, গত ১ সেপ্টেম্বর শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়নের প্রথম দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচিত ১১জন প্রার্থীর মধ্যে একজন প্রার্থী পদত্যাগ করেন। শপথ বাক্য পাঠকারী প্রার্থীরা হলেন-মোঃ সভাপতি মোঃ মাসুদ আলম, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মওদুদ-উল-করিম, সহ-সভাপতি মোঃ মেসবাহুল ইসলাম বকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মমিনুর ইসলাম, অর্থ সম্পাদক মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন, দপ্তর সম্পাদক মো. মোতাহার হোসেন, প্রচার ও সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক মোঃ তানজিমুল ইসলাম, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ হারুন-অর-রশিদ এবং সদস্য মো. হায়দার আলী।