dinajpur polli bedut logo-dinajpur24

স্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর২৪.কম) জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ-১ এর হরেন্দ্র নাথ বর্মনের বিরুদ্ধে এলাকা পরিচালক পদে স্বজনপ্রীতি এবং অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা গেছে, চলতি মাসের ১৬ জানুয়ারি’২০২০ এ বীরগঞ্জ উপজেলার পল্লী বিদ্যুতের এলাকা পরিচালক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এরই ধারাবাহিকতায় মোট ১০জন প্রার্থী উক্ত পদে আবেদন করেন। এর মধ্যে দিনাজপুর সদরে ৪জন এবং বীরগঞ্জ উপজেলায় ৬জন প্রার্থী ছিল।
কিন্তু প্রার্থীদের অভিযোগ গত ১৫/১২/২০১৯ তারিখে যাচাই-বাছাইয়ের সময় প্রার্থীকে সঠিক তথ্য না প্রদান করে বিভিন্নভাবে কারও স্বাক্ষর নাই, কারও যথাযথভাবে ফরম পূরণ হয় নাই মর্মে বিষয়টি গোপন রাখেন এবং তাদের মনোনীত দুজনকে মনোনীত করেন উক্ত জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ-১ হরেন্দ্র নাথ বর্মন। প্রকাশ থাকে যে, এই পরিচালক নির্বাচনের নিয়ম হলো কোন সরকারি- বেসরকারি-আধা-সরকারি, সায়ত্ব শাসিত কোন ব্যক্তি এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ এবং বহিরাগতরা নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করতে পারবেন না। কিন্তু এখানে সেটা হয়নি। সম্পূর্ণ নিয়মবর্হিভূতভাবে উক্ত পদে ২জনকে মনোনীত করা হয়েছে।
অভিযোগে জানা গেছে, পরিচালক পদে থাকা অবস্থায় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে থেকেও সুজালপুর গ্রামের বীরগঞ্জ উপজেলার মোঃ সেরাজুল ইসলামের পুত্র আইয়ুবুল ইসলামকে স্বারক নং মুলে- ২৭.১২.২৭৬৪.৫১৮.০৫.০০৬.১৯/৬০৮৯, ১৯/১২/১৯ তারিখে চূড়ান্তভাবে মনোনীত করে ঘোষণা করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর বাই’ল নির্বাচনী বিধিমালা পরিপন্থি বলে আবেদনকৃত প্রার্থীরা জানান। তিনিরা আরও বলেন, হরেন্দ্র নাথ বর্মন তাদের সাথে গোপন আঁতাতের মাধ্যমে উক্ত ২জনের ১জন বিতর্কিত ব্যক্তিকে মনোনীত করা হয়েছে।
আবেদনকৃত প্রার্থীরা আরও বলেন, আমাদের কোন কারণে কোথাও হয়তো ভুল বশতঃ স্বাক্ষর করতে ভুল করেছি কিন্তু কর্তৃপক্ষ কেন তখন আমাদের স্বাক্ষর নেয়নি কিংবা আমাদের অবগত করাননি। এই নির্বাচন আমরা প্রত্যাখান করে প্রয়োজনে হাইকোর্টে লড়বো। তবু এর শেষ দেখে ছাড়বো।
এ সব বিষয়ে আবেদনকৃত প্রার্থীরা এ প্রতিনিধিকে জানান, আমরা সকলে উক্ত নির্বাচনের রিটানিং অফিসার ও নির্বাচন কমিশন প্রধান দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ-১ এবং নির্বাহী প্রকৌশলী বাপবিবো, রংপুরের বিজয় কান্ত পালকে জানালে, তিনিও আমাদের সাথেও বিমাতাসুলভ আচরণ করেন। ভুক্তভোগীরা অনতিবিলম্বে নির্বাচন স্থগিতসহ সুষ্ঠু নির্বাচনের নিমিত্তে পুনরায় নির্বাচনে ব্যবস্থা গ্রহণ করতঃ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।