(দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুর নবাবগঞ্জ উপজেলায় আবাদী জমি থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করছে একটি প্রভাবশালী চক্র। স্থানীয় প্রশাসন সবই দেখছেন কিন্তু স্থানীয় ভূমি কর্মকর্তা প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে মামলা করলেও আইনি ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে জানান স্থানীয় জনতা।
সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, দিনাজপুর নবাবগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের দোমাইল গ্রামে প্রায় ৬ বিঘা ফসলী জমি ও পুকুর থেকে অবৈধভাবে শ্যালোমেশিনে পাইপ লাগিয়ে বালু উত্তোলন করছে একটি প্রভাবশালী চক্র। সেখানে এলোমেলোভাবে পাহারা দিচ্ছেন কয়েকজন যুবক। আর সেই বালু ট্রলিতে করে বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। সেখান থেকে বালু উত্তোলন করার ফলে প্রায় ২০-৩০ ফুট গভীর জলাশয় সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ফসল চাষ হুমকির মুখে পড়েছে। এ ব্যাপারে ক্ষতিগ্রস্তরা উপজেলা প্রশাসনের নিকট অভিযোগ করলেও অভিযোগটি ফাইলবন্দি হয়ে পড়ে রয়েছে।
দাউদপুর ইউনিয়ন ভূমি সহকারি কর্মকর্তা অমল চন্দ্র সরকার বলেন, ‘স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে গত ১৫ মার্চ আমি ওই দুই ঘটনাস্থলে সরেজমিনে পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পাই। পরে ১৬ মার্চ “বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন-২০১০ এর ৪ (ক) ও ৫(১) ধারা লঙ্ঘন করে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বালু বিক্রির অভিযোগে দোমাইল গ্রামের মৃত কফিল উদ্দিনের ছেলে মেহের আলী (৬০), মামনুর রশিদ (৫৫), মমিনুল ইসলাম (৪৫) ও মারফিদুল ইসলাম (৩৮) এর বিরুদ্ধে নবাবগঞ্জ থানায় লিখিতভাবে অভিযোগ করি। যার স্বারক নম্বর- ২৬৩ ও ২৬৪ এবং তারিখ ১৬.৩.২০২০। কিন্তু পরে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও থানা পুলিশ সেই অভিযোগ আমলে নেননি বলেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
দোমাইল গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা সেকেন্দার আলী, মোহাদ্দেস আলী ও রেহেনুল জানান, এলাকার প্রভাবশালী আরিফ, রাজু আর মোহাম্মদ আলী নামের তিনজন অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছেন। মেশিন দিয়ে বালু তোলার ফলে পাশের জমিগুলোর মাটি ধসে যাওয়ায় সেগুলো হুমকির মধ্যে রয়েছে। এবং গ্রামের পাকা রাস্তা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।
নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অশোক কুমার চৌহান বলেন, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও বিক্রির অভিযোগে অনেকেই গ্রেফতার হয়েছেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছা. নাজমুন নাহার বলেন, স্থানীয় ও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের নিকট থেকে ওই এলাকায় নদী ও ব্যক্তিগত ফসলি জমি থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রির অভিযোগে সেখানে একাধিকবার অভিযান চালানো হয়েছে। সেখান থেকে বালু উত্তোলনের যন্ত্রপাতি জব্দ করা হয়েছে।
দিনাজপুর-৬ আসনের শিবলী সাদিক এমপি বলেন, উপজেলায় বালু উত্তোলনের কথা আমি শুনেছি,এই বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে রাজনৈতিক পরিচয়ে কেউ অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের সাথে জড়িত থাকলে তার দ্বায়ভার আমরা নেব না।