আতিউর রহমান (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুর বিরল উপজেলায় মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় এক স্কুল ছাত্রী নিহত হয়েছে। বই নিয়ে বের হয়েও স্কুলে পৌঁছতে পারলোনা শিশু কন্যা আরমিনা (৭)। দ্রুত গতিতে চলমান মোটর সাইকেলের ধাক্কায় কেড়ে নেয় তার অবুঝ প্রাণ। মহুর্তে হাতের বই ছিটকে গিয়ে পিচ ঢালা রাস্তায় পড়ে যায় শিশু আরমিনার নিথর দেহ। সে উপজেলার সদর ইউপি’র বুনিয়াদপুর গ্রামের আরমান আলীর কন্যা এবং বুনিয়াদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেনীর ছাত্রী।
জানা গেছে, বিরল উপজেলার সদর ইউনিয়নের পঁচাকান্দর গ্রামের আরমান আলীর শিশু কন্যা আরমিনা আক্তার বাড়ী থেকে স্কুলে যাওয়ার সময় বিরল-নাড়াবাড়ী সড়কে বুনিয়াদপুর নামক স্থানে পিছন থেকে দ্রুত গতিতে চলমান মোটারসাইকেল ধাক্কা দেয়। এতে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। মোটর সাইকেল আরোহী মেজবাহুল ইসলাম সাথে সাথে আরমিনাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাঁকে মৃত ঘোষনা করে। এ সময় উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফিরোজা বেগম সোনা মোটর সাইকেলসহ চালক মেজবাহুলকে আটক করে থানায় সংবাদ দেন। পুলিশ সংবাদ পেয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে মোটর সাইকেলসহ চালক মেজবাহুলকে থানায় নিয়ে আসেন। নিহতের সুরত হাল রির্পোট তৈরী করে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করে পুলিশ। বিরল থানার অফিসার ইনচার্জ তাপস চন্দ্র পন্ডিত জানান, মোটর সাইকেলসহ চালক মেজবাহুল ইসলামকে আটক করা হয়েছে। মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।