(দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের সবার প্রিয় মুখ সাংবাদিক কাজী শরিফুল ইসলাম মঞ্জু ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্না ল্লিøাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বোরবার (২৩ জুলাই) বিকেল ৪টায় হঠাৎ অসুস্থ হলে পড়লে তাঁকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। মরহুম শরিফুল ইসলাম মঞ্জু সাংবাদিক ইউনিয়ন দিনাজপুর’র প্রতিষ্ঠাতা সাবেক দপ্তর সম্পাদক ও দিনাজপুর থেকে প্রকাশিত দৈনিক খবর একদিন পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার ছিলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৫ বছর। তিনি স্ত্রী এক ছেলে, দুই মেয়েসহ অসংখ্যা আত্মীয়-স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।
সোমবার বাদ জোহর শহরের বালুয়াডাঙ্গা কাজী জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে মরহুমের জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। তাঁর জানাজার নামাজে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মী, সাংবাদিক, শিক্ষকসহ সর্বস্তরের মুসল্লি অংশগ্রহণ করেন। জানাজা শেষে তাঁকে ফরিদপুর কবরস্থানে দাফন করা হয়।
বিএফইউজেসহ বিভিন্ন মহলের শোক
মরহুম কাজী শরিফুল ইসলাম মঞ্জু’র মৃত্যুতে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন’র (বিএফইউজে) সভাপতি শওকত মাহমুদ ও মহাসচিব এম আব্দুল্লাহ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোক বার্তায় নেতৃবৃন্দ মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছেন। এছাড়া সাংবাদিক ইউনিয়ন দিনাজপুর’র সভাপতি জি.এম হিরু, সাধারণ সম্পাদক মো. মাহফিজুল ইসলাম রিপন, দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বরুপ কুমার বকসি বাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক গোলাম নবী দুলাল, চ্যানেল আই’র স্টাফ রিপোর্টার শাহ আলম শাহী, সাপ্তাহিক আওয়ামী কন্ঠের বার্তা সম্পাদক নুরুল হুদা দুলাল, দিনাজুপুর পৌর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম, দিনাজপুর জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আমেরিকা প্রবাসী মো. শাহিন খান, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক বখতিয়ার আহমেদ কচি, বাংলাদেশ ন্যাপ দিনাজপুর জেলা সভাপতি মঞ্জুরুল আলম, দিনাজপুর পৌর বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব সোলায়মান মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক সামসুজ্জামান চৌধুরী খোকা, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আব্দুল মান্নান সরকার, দিনাজপুর জেলা সংবাদপত্র হকার্স ইউনিয়নের সভাপতি মো. আব্দুল মান্নান, সাধারণ সম্পাদক মো. জাফর আলীসহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।
উল্লেখ্য, মরহুম কাজী শরিফুল ইসলাম মঞ্জু দিনাজপুর শহরের স্টেশন রোডস্থ দিনাজপুর বোর্ডিংয়ের স্বত্বাধিকারী মরহুম কাজী শামসুল হুদার ষষ্ঠ ছেলে।