(দিনাজপুর২৪.কম) ‘কন্যাশিশুর অগ্রযাত্রা, দেশের জন্য নতুন মাত্রা’ এই শ্লোগানে দিনাজপুরে সফল নারীর জীবনের গল্প ফুটিয়ে তুলে বিভিন্ন স্কুল মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের নিয়ে আন্তার্জাতিক কন্যাশিশু দিবস পালন করা হয়েছে।
শুক্রবার সকাল ১০টায় দিনাজপুর জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় এবং বাংলাদেশ শিশু একাডেমির আয়োজনে শিশু একাডেমির হল রুমে শতাধিক কন্যাশিশুদের নিয়ে আন্তার্জাতিক কন্যা শিশু দিবস পালন করা হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. সানিউল ফেরদৌস এবং অনুষ্ঠানের মূল আলোচক হিসেবে উপস্থিতি ছিলেন দিনাজপুর মহিলা বহুমুখী সমবায় কেন্দ্রের (এমবিএসকে) নির্বাহী প্রধান কর্মকর্তা মোসা. সুলতানা রাজিয়া খাতুন।
প্রধান অতিথি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক বলেন, ‘নারী অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আজকের কন্যাশিশু আগামী দিনের নারী। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এসময় তিনি বিভিন্ন সমস্যার কথা শোনেন। কন্যাশিশুদের বিভিন্ন সমস্যা কিভাবে দূর করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা করেন। বাল্য বিয়ে, যৌতুক, ইভটিজিং, মেয়েদের স্বাবলম্বী হওয়ার বিষয়েও তিনি আলোচনা করেন। পাড়ালেখার পাশাপাশি কন্যাদের আত্মবিশ্বাস ও নিজেদের স্বপ্ন গুলো বাস্তবায়িত করার লক্ষ্যে স্থিরচিত্রে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান তিনি।’
তিনি বলেন, অভিভাবকদের সচেতনতার অভাবে অনেক সময় কন্যাশিশুদের একটি অংশ বাল্যবিয়ের শিকার হয়। তাই বাল্যবিবাহ বন্ধ করতে হবে। একজন শিক্ষিত মা তার সন্তানকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে পারেন।
অনুষ্ঠানের মূল আলোচক দিনাজপুর মহিলা বহুমুখী সমবায় কেন্দ্রের (এমবিএসকে) নির্বাহী প্রধান কর্মকর্তা মোসা. সুলতানা রাজিয়া খাতুন কন্যাদেরকে নিজের সফলতার গল্প শোনান। তিনি বলের, ‘একজন নারী চাইলেই সে অনেক দূর এগিয়ে যেতে পারে। বর্তমানে সরকার নারীদের জন্য অনেক সুযোগ সুবিধা দিয়েছেন। উন্নত দেশে নারী পুরুষদের সমান অধিকার নিশ্চিত হয়েছে। আমাদের দেশেও বর্তমানে সরকার নারীদের সমান অধিকার নিশ্চিন্তের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। আমিও একজন নারী। আমি একটা সংস্থার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হলে তোমরা কেন পারবে না। তোমাদের চেষ্টা ও স্বপ্ন থাকলে তোমরাও একদিন বিশ্ব জয় করতে পারবে।’