চন্দন মিত্র (দিনাজপুর২৪.কম)  দূর্ঘটনা ঘটে যাওয়ার পরে নয়, আগে থেকেই সচেতনতা অবলম্বন করলে বড় ধরনের দুর্ঘটনার কবল থেকে রক্ষা পেতে পারে অনেকের জীবন। দিনাজপুরে বর্তমানে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন জনবহুল এলাকায় গড়ে উঠেছে গ্যাস সিলিন্ডারের রমরমা ব্যবসা। ইতিমধ্যে বাংলাদেশে গ্যাস সিলিন্ডারের বিষ্ফোরণের ফলে অনেক বড় বড় দূর্ঘটনা ঘটে গেছে যা আমরা বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম ও পেপার পত্রিকা খুললেই দেখতে পাই। তবুও আমরা সচেতন হই না। এরই সূত্র ধরে দিনাজপুর শহরের ব্যস্ততম এলাকা পাহাড়পুর ইকবাল হাই স্কুল সংলগ্ন এলাকায় রহিম স্টোর নামে এক গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। যেখান থেকে প্রতিদিন রিক্সা, ভ্যানসহ বিভিন্ন যোগাযোগ মাধ্যমে গ্যাসের সিলিন্ডারগুলো এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় স্থানান্তরিত করা হয়। কিন্তু যেকোন মুহুর্তে সামান্য ত্রুটি বিচ্যুতি হলেই ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা এমনটি আশংকা করেছেন অত্র এলাকাবাসী ও স্কুল কর্তৃপক্ষ। তাদের দাবী গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটিকে এই ব্যস্ততম এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পাশ থেকে অন্যত্র ফাঁকা নিরাপদ জায়গায় স্থানান্তরিত করার জন্য জেলা প্রশাসকের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। শুধু অত্র এলাকায় নয় দিনাজপুর সদরের আরো বিভিন্ন ব্যস্ততম ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আশপাশে এভাবেই চালিয়ে যাচ্ছে গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবসা। তাই গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবসা গুলোকে অর্থাৎ সিলিন্ডার রক্ষিত স্টোরগুলোকে অন্যত্র ফাঁকা জায়গায় নেওয়ার ব্যাপারে জেলা প্রশাসকের দ্রুত হস্তক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন স্থানীয় সচেতন মহল। অসচেতনতা ও সামান্য ভুলের কারণে দূর্ঘটনা যেন না হয় সারা জীবনের কান্না, তাই সময় থাকতেই দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন বিভিন্ন সচেতন মহল।