(দিনাজপুর২৪.কম) শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করনসহ ১১দফা দাবীতে দিনাজপুরে ৯টি শিক্ষক কর্মচারী সংগঠন শিক্ষক কর্মচারী সংগ্রাম কমিটি দিনাজপুর শহরে বিক্ষোভ, মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান কর্মসুচী পালন করে।
৯ জানুয়রী মঙ্গলবার দিনাজপুর চেহেলগাজী স্কুল থেকে সকাল সাড়ে ১১ টায় বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে সদর উপজেলা চত্বরে শেষ হয়। পরে সদর উপজেলা সম্মুখ সড়কে মানববন্ধন পালন করা হয়। মানববন্ধন শেষে সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আশরাফুল হক প্রধানের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর জেলা শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ মাতলুবুল মামুন, সহ-সভাপতি মোঃ ফজলুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক লোকমান হাকিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ আবুল ফজল, শিক্ষক কর্মচারী সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক ও সদর উপজেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি মোঃ আব্দুর হামিদ, শিক্ষক কর্মচারী সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক ও বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি সদর উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক মোঃ আতিকুর রহমান নিউ, শিক্ষক কর্মচারী সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক ও বাংলাদেশ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমান, বাংলাদেশ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ বদিউজ্জামান বাদল, সদর উপজেলা শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক মাসউদ আলম প্রমুখ।
১১ দফা দাবী সমূহ : শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয় করন। সরকারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারীদের ন্যায় বেসরসকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারীদের ৫% বার্ষিক প্রবৃদ্ধি, পুর্নাঙ্গ উৎসব, বাংলা নববর্ষ, বাড়ী ভাড়া ও চিকিৎসা ভাতা প্রদান। অনুপাত প্রথা বিলুপ্ত করে সহকারী অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপক পদে পদোন্নতি। বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সহকারী প্রধান শিক্ষকদের বেতন স্কেল সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সরকারী প্রধান শিক্ষকের অনরুপ প্রদান, সহকারী শিক্ষক কর্মচারীদের পুর্বে ন্যায় টাইম স্কেল প্রদান। বেসরকারী শিক্ষাপ্রতিস্ঠান শিক্ষক কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যান ট্রাস্টের মাধ্যমে বেসরকারী শিক্ষক কর্মচারীদের আর্থিক সুবিধা প্রদানের পরিবর্তে অবিলম্বে পুর্ণাঙ্গ পেনশন চালুকরন। নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও অনার্স ও মাষ্টার্স কোর্সে পাঠদানকারী শিক্ষকসহ বিধিমোতাবেক নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিওভুক্তকরণ। ইউনেস্কোর সুপারিশ অনুযায়ী শিক্ষাখাতে ডিজিপির ৬ % এবং জাতীয় বাজেটের ২০ % বরাদ্দ। বেসরকারী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জনবল কাঠামো যুগোপযোগীকরন ও সরকারী প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির চারকরি বিধিমালা অবিলম্বে বাস্তবায়ন। শিক্ষা সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরে বেসরকারী শিক্ষকদের ৩৫% প্রেষনে নিয়োগ। কারিগরি শিক্ষা উন্নয়নের লক্ষে একটি কারিগরি ও ভোকেশনাল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন। জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ বাস্তবায়ন ত্বরান্বিত করন।