sssস্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর২৪.কম) উপরের ছবিটি দেখলে মনে হবে এখানে কোনো দুঘর্টনা ঘটেছে। কিংবা কেউ মারা গিয়েছে দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশনে। কিন্তু তা না। মটর সাইকেল এর ভীড় কমাতে রেল কর্তৃপক্ষ এই ব্যবস্থা নিয়েছেন যা যাত্রীদের চরম ভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে।
দিনাজপুরে কাল বাদ পরশু মুসলিম বিশ্বের ২য় বৃহত্তম ঈদ উল আযহা উদযাপিত হবে। দূর দূরান্ত থেকে আসা সাধারণ জনগণ রেলওয়ে টিকেটের আশায় ভীড় করেছে আসা স্টেশন প্লাট ফর্মে। কিন্তু কি হলো। স্টেশনের প্রধান কাউন্টারের সামনে চতুর্ভুজ আকৃতির লাইলন রশি দিয়ে ঘেরাও করে রেখেছে রেল কর্তৃপক্ষ। দিনাজপুরে গতকাল ও আজকের বৃষ্টিতে কাঁদা হয়ে গেছে স্টেশন চত্বর। প্রধান ফটকের সামনে এভাবে ঘেরাও দেওয়ার ফলে টিকেট কাটতে আসা এবং বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা যাত্রীদের যেন ভোগান্তির শেষ নেই।
যাত্রীদের ভোগান্তি বাড়িয়ে দিয়ে কে এই মহৎ কাজটি করল। কেউ বলতে পারলো না। অটো ড্রাইভার এবং যাত্রী সাধারণ আক্ষেপ করে বললো সাংবাদিক ভাই এখানে হাডু-ডু খেলা হবে। একটু সামনে গিয়ে জানা গেল নিরাপত্তা প্রহরী লক্ষণের কাছে এটি কাজটি করেছে আরএমবির নির্দেশে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক রেলওয়ে কর্মকর্তা জানান, রেলওয়ে স্টেশনে বেশ কয়েকবার রাস্তা সংস্কারের কাজ হলো। এই দেখেন গতকাল এটি রাস্তা সংস্কার এর কাজ করা হয়েছে কিন্তু রাস্তা নিম্ন নামের কাজ হওয়ার কারণে রাস্তার উপরের অংশগুলো এমনিতেই উঠে গেছে। যেই জায়গাটি ঘিরে রেখেছে সেখানে আলকাতরাই দেয়া হয়নি ! ফলে ছোট ছোট পাথরের টুকরো গুলো উকি দিচ্ছে।
যাত্রীদের ভোগান্তি এবং রাস্তা সংস্কারের বিষয়ে স্টেশন মাস্টার, স্টেশন সুপারেন্টটেন্ট, ওয়াই ডাব্লুউ, কোনো কর্মকর্তাই উপস্থিত ছিলেন না।
রাজশাহী পশ্চিমাঞ্চল জিএম-এর কাছে যাত্রী সাধারণের জোর দাবী রেলওয়ে স্টেশন বার বার রাস্তা সংস্কারের নামে নিম্নমানের কাজ দেখিয়ে সরকারের লাখ লাখ নষ্ট যারা করেছে তাদের আইনানুক ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার। অবিলম্বে যাত্রীদের যাতাযাতের সুবিধার্থে রেলওয়ে কাউন্টারের সামনে থেকে বেরিকেড তথা রশি তুলে দেবার।