(দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ে অনিয়ম ও দুর্ণীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৩ আগষ্ট) সকাল ১১টায় দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। পরে মুক্তিযোদ্ধারা দিনাজপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে।
মানববন্ধন কর্মসূচী ও সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধারা অভিযোগ করে বলেন, দিনাজপুরে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসরন করা হয়নি। মুক্তিযোদ্ধাদের উন্মুক্ত যাচাই-বাছাই করার কথা থাকলেও সেটি হচ্ছে না। আবার মুক্তিযোদ্ধা না এমন ব্যক্তিরা যাচাই-বাছাই কমিটিতে অর্ন্তভুক্ত ছিল, যা বিধান পরিপন্থি এবং সরকারের সিদ্ধান্তের পরিপন্থি। পাশাপাশি যেসব মুক্তিযোদ্ধাদের বিষয়ে অভিযোগ দেয়া হয়েছে এমন ২৬৯ জনকে যাচাই-বাছাই বোর্ডে উপস্থাপন করা হয়নি। মুক্তিযোদ্ধাদের অভিযোগ, অনেকেই রয়েছেন যারা রাজাকার। অথচ তারা ভারতীয় মুক্তিযোদ্ধাদের নাম ভাঙ্গিয়ে মাসিক ভাতাসহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা নিচ্ছেন, যা লজ্জাকর ব্যাপার। অথচ যাচাই-বাছাই বোর্ড এ ব্যাপারে সঠিকভাবে যাচাই-বাছাই করেনি।
মুক্তিযোদ্ধারা আরো অভিযোগ করেন, লাল মুক্তিবার্তা বইটিকে মুক্তিযোদ্ধাদের হাদিস/আসমানি কিতাব বা দলিল বলে গণ্য হলেও এই বইটিতে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা রয়েছে এবং অনেক ভারতীয় ভলিয়মধারী প্রকৃত এফএফ মুক্তিযোদ্ধাদের নাম বাদ পড়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে জেলার ১৩ উপজেলার মনগড়া যাচাই-বাছাই বাতিল করা, উচ্চ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের আলাদা গেজেট প্রকাশ করা, সেনাবাহিনীর মাধ্যমে ভারতীয় তালিকা অনুযায়ী মুক্তিযোদ্ধাদের নতুন গেজেট প্রকাশ, পূণাঙ্গ যাচাই-বাছাই সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন না দেয়াসহ ১৮ দফা দাবি উত্থাপন করেন মুক্তিযোদ্ধারা।
মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক আলহাজ্ব আবু হায়াত কুদরতে খোদা, মুক্তিযোদ্ধা সহদেব চন্দ্র, কামরুজ্জামান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।