(দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুর জেলার বিরল উপজেলায় মারপিটে নিহত হয়েছে এক মহিলা। একই ঘটনায় আহত দু’জন দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ আটক করেছে ২ জনকে।
জানা গেছে, উপজেলার শহরগ্রাম ইউপি’র ওকড়া গ্রামের শামসুল হকের পুত্র জামাল উদ্দিন (৪০) পুত্রবধূ কুলছুমা বেগম (৩৫ এর সাথে প্রতিবেশী মৃত জহুর মোহাম্মদের পুত্র মামনুর রশিদ (৫৮), ওয়াজেদ আলী (৪০), ওবায়দুল হক ((৪২), নাতি আনোয়ার হোসেন (৪০), বেলাল হোসেন (২৬), পুত্রবধূ আনোয়ারা বেগম (৫৫) ও মৃত কবির উদ্দিনের পুত্র মিজানুর রহমান (৪৫), মৃত অশার মোহাম্মদের পুত্র রফিকুল ইসলাম (২৮) এর ১৬ জুন শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় বাকবিতন্ডা হয়। বাকতিন্ডার এক পর্যায়ে পূণরায় মামনুর রশিদরা রাত ৯টায় ধলবদ্ধ হয়ে মারপিট শুরু করলে কুলছুমা বেগম (৩৫), জামাল উদ্দিন (৪০) ও বিলকিস বেগম (৩০) গুরুতর আহত হয়। আহতদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে মামনুর রশিদরা বিভিন্ন রকমের ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে প্রতিবেশীরা আহতদের উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৩ টায় কুলছুমা বেগমের মৃত্যু হয়। অপর আহত দু’জন গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। শনিবার নিহত কুলছুমা’র পিতা ফজলুর রহমান বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ১৬, তারখি ঃ ১৭.০৭.২০১৭ দায়ের করে। পুলিশ মামনুর রশিদ ও তার স্ত্রী আনোয়ারা বেগমকে আটক করেছে। বিকালে এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত আটকৃতদের আদালতে সোপর্দ ও লাশ ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের নিকট হস্তান্তরের প্রস্তুতি চলছিল।