স্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুর জেলার কাহারোল কাহারোল উপজেলার জিহাদী বই ও দেশীয় অস্ত্র সহ ৭জন ছাত্র শিবিরের নেতাকর্মী গ্রেফতার হওয়ার ৩৩ ঘন্টার মাথায় বিক্ষুদ্ধ জনতা সেই শিবিরের স্কুলে ভাংচুর করে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭ টার সময় স্থানীয় বিক্ষুদ্ধ জনতা এই অগ্নি সংয়োগ করেন। এর আগে সেখানে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর-১ (বীরগঞ্জ- কাহারোল) আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল বক্তব্য রাখেন। সমাবেশ শেষে স্থানীয় জনতা শিবিরের স্কুল নামে পরিচিত ভিক্টরি ইন্টরন্যাশনাল স্কুলে অগ্নি সংযোগ করেন।

৪ আগষ্ট’১৬ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কাহারোল উপজেলার ৫নং সুন্দরপুর ইউনিয়নের দশমাইল সংলগ্ন পূর্বসাদীপুর গ্রামের আজিজুল ইসলামের বাড়িতে স্থাপিত ভিক্টরি ইন্টরন্যাশনাল স্কুলে জিহাদী বই, দেশীয় অস্ত্র, সাংবাদিকের পরিচয় পত্র, ছাত্র শিবির ও সংগঠনের পরিচয় পত্র সহ ৭ জনকে  গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রফতারকৃতরা হলেন- কাহারোল উপজেলার চকপ্রাণ কৃষ্ণ গ্রামের গোলাম মোস্তফার ছেলে, মো. জাকিরুল ইসলাম (২৬), গড়নরপুর গ্রামের সাজেমান আলীর ছেলে মো. রফিকুল ইসলাম (২৪), ইটুয়া গ্রামের নাইমুল হক এর ছেলে মো.শামীম রেজা (২৬), পূর্ব মল্লিকপুর গ্রামের আজদুল হকের ছেলে মো. আমজাদ হোসেন (২৬), নীলফামারী জেলার কিশোরগঞ্জ উপজেলার চাঁদখানা গ্রামের কায়েদে আযমের ছেলে মো. বদরুল ইসলাম (২৩), হাজামান আলীর ছেলে মো. নুরুল ইসলাম (২০), ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার সিঙ্গারোল গ্রামের সামছুল হকের ছেলে মো. কাজল (৩২)।

এই ঘটনার প্রতিবাদে এলাকার মানুষ ফুসে উঠে। বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় জনতা দশমাইল মোড়ে মানববন্ধন করে। সন্ধ্যা  ৬ টার দিকে স্থানীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল দশমাইল হয়ে কাহারোলে যাচ্ছেন শুনে স্থানীয় জনগন  তাকে দশমাইল মোড়ে আটক করেন। এ সময় তিনি সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন।
কাহারোল থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মনসুর আলী সরকার জানান, ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বিক্ষুদ্ধ জনতা স্কুলটিতে আগুন লাগিয়ে দেয়ার পর পাকা বিল্ডিং এ তালা ঝুলিয়ে দিয়েছেন।