স্টাফ রিপোর্টার, (দিনাজপুর টোয়েন্টিফোর ডটকম) করোনায় আক্রান্ত ব্যাংক কর্মচারী’র মা,বাবা ও ভাইসহ আরো নতুন করে দিনাজপুরে আজ মঙ্গলবার আরো ৭ জন করোনা আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দিনাজপুরে করোনা আক্রান্ত সংখ্যা ২৯ জন। তার মধ্যে সনাক্ত না হতেই একজনের মৃত্যু হয়েছে।
দিনাজপুর জেলা সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কৃদ্দুস জানিয়েছেন,দিনাজপুরের ৪৬টি নমূনা আজ দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে ৭টি নমুনা করোনা আক্রান্ত পজেটিভ এসেছে। পার্বতীপুর উপজেলার ভিত্তিপাড়া এলাকায় করোনায় আক্রান্ত ইসলামী ব্যাংক কর্মচারী’র মা,বাবা ও ভাই,কাহারোল উপজেলায় ৩জন ও নবাবগঞ্জ উপজেলায় আরো একজন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছে।

এনিয়ে দিনাজপুরে ২৯ জন করোনা আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছেন বলে তিনি জানান। তারমধ্যে সনাক্ত হওয়ার আগেই সদর উপজেলার চেহেলগজী ইউনিয়নের উত্তর গোবিন্দপুর গ্রামের ইটভাটা শ্রমিক সঞ্জয় দেব (২৯) গত ১ মে করোনা আক্রন্ত হয়ে মারা গেছে। তার শরীরের নমূনা নিয়ে পরীক্ষার জন্য পাঠানোর পর তিনদিন পর গত সোমবার রিপোর্ট এসেছে,সঞ্জয়ের করোনা আক্রান্ত হয়েই মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে সদর উপজেলার এক এবং কাহারোল উপজেলার আরেক দম্পতিসহ দুই দম্পতি করোনা আক্রান্ত। তাদের দু’পরিবারের দু’টি শিশুও আক্রান্ত করোনায়।

শহরে আরো একজন,সদর উপজেলায় আরো দু’জন,কাহারোল উপজেলায় আরো একজন, নবাবগঞ্জ উপজেলায় ৪ জন,ঘোড়াঘাট উপজেলায় দু’জন,হাকিমপুর(হিলি) উপজেলায় দু’জন,ফুলবাড়ী উপজেলায় একজন,পাবর্তীপুর উপজেলায় এক ব্যাংক কর্মচারীসহ তার পরিবারের আরো ৩জন এবং বোচাগঞ্জ উপজেলায় একজন করোনায় আক্রান্ত। আক্রান্তদের মধ্যে ৫ জন মহিলা,একজন শিশুপুত্র,একজন শিশুকন্যা ও ২১ জন পুরুষ।
প্রথম আক্রান্ত সনাক্ত হয় গত ১৫ এপ্রিল মঙ্গলবার। এই প্রথম দিনে এক দম্পতিসহ ৭ জন করোনা রোগি সনাক্ত হয়। এর পরের দিন ১৬ ্এপ্রিল একজন, ১৭ এপ্রিল একজন, ১৮ এপ্রিল একজন, ২০ এপ্রিল একজন, ২১ এপ্রিল দু’জন, ২৫ এপ্রিল একজন,২৭ এপ্রিল একজন, ২৯ এপ্রিল একজন,৩০ এপ্রিল একজন,২ মে এক দম্পতি’র ৩ জন এবং ৩ মে আরেকজন ব্যাংক কর্মচারী,৪ মে একজন মৃতব্যক্তি এবং আজ ৫ মে আরো ৭ জন করোনা আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছে।

এদিকে করোনা আক্রান্ত দিনাজপুর শহরের সুইহারী মির্জাপুর গোয়ালপাড়ার দম্পতি’র স্বামী,নয়নপুর এলাকার যুবক,ফুলবাড়ী উপজেলার যুবক ও নবাবগঞ্জ উপজেলার আরেক ব্যক্তি করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়েছেন। তাই,করোনা যুদ্ধে জয়ী এই ৪ ব্যক্তির মধ্যে শহরের দু’ব্যক্তির বাড়িতে গিয়ে আজ মঙ্গলবার দূর্যোগপূর্ণ আবহায়াতেও বিকেলে জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুর রহমান ও সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুস ফুল ও ফল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।অন্যদিকে করোনা যুদ্ধে জয়ী ফুলবাড়ী ও নবাবগঞ্জ উপজেলার দু’জনকে বাড়িতে গিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।