(দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলায় এক স্কুল ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় ওই ছাত্রীর বড় ভাইকে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উত্ত্যক্তকারী উপজেলার বোয়ালদাড় স্কুল এন্ড কলেজ শাখার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। আহত জহুরুল ইসলাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন। এব্যাপারে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। আজ বুধবার উপজেলার বোয়ালদাড় স্কুল এন্ড কলেজের কাছে এঘটনা ঘটে। এলাকাবাসী ও ছাত্রীর পরিবার জানায়, সকাল ১১টার দিকে জহুরুল বিরামপুর শহরে যাওয়ার উদ্দেশ্যে উপজেলার পাইকপাড়া নিজ বাড়ী থেকে বের হন। এসময় তিনি বোয়ালদাড় স্কুল এন্ড কলেজের কাছে পৌঁছালে উত্ত্যক্তকারী ছাত্রলীগ নেতা মোকাদ্দেছ আলী ও তার ভাই বাবর আলী জহুরুলের পথরোধ করে অশ্লীল ভাষায় গালাগাল করতে থাকেন। একপর্যায়ে জহুরুল প্রতিবাদ করলে তারা উত্তেজিত হয়ে তার উপর চড়াও হন এবং কিল, ঘুষি ও লাঠি দিয়ে জহুরুলকে আঘাত করতে থাকেন। এসময় জহুরুলের মাথা ফেটে যায় এবং শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত পেয়ে মাটিতে পড়ে যান। লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
আহত জহুরুল জানান, এক বছর ধরে বোয়ালদাড় গ্রামের আকবর হোসেনের ছেলে ও বোয়ালদাড় স্কুল এন্ড কলেজ শাখার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোকাদ্দেছ আমার বোনকে বোয়ালদাড় স্কুল এন্ড কলেজে আসা-যাওয়ার পথে প্রায় সময় উত্ত্যক্ত করে আসছিল। বিষয়টি বোনের কাছে শোনার পর গত কয়েকদিন আগে মোকাদ্দেছের পরিবারকে জানায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মোকাদ্দেছ তার ভাই বাবর আমাকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। এদিকে যোগাযোগ চেষ্টা করেও অভিযুক্ত মোকাদ্দেছ আলীকে পাওয়া যায়নি। এব্যাপারে হাকিমপুর থানার ওসি মোখলেছুর রহমান জানান, লোকমুখে এমন খবর জেনেছি। তবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।