(দিনাজপুর২৪.কম) “স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনায় সংকট উত্তরণে নার্স-পরিবর্তনের এক সহায়ক শক্তি” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় দিনাজপুরে আন্তর্জাতিক নার্সেস দিবস-২০১৬ ও ফ্লোরেন্স নাইটিংগেল’র ১৯৬তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করে। কর্মসূচীর মধ্যে ছিল র‌্যালী, আলোচনা সভা, জন্ম দিনের কেক কাটা, ফিতা কাটা, কবিতা আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।  বৃহস্পতিবার (১২ মে) সকাল ৮টায় দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নার্সিং কর্মকর্তাদের আয়োজনে হাসপাতাল ক্যাম্পাস থেকে ভারপ্রাপ্ত সেবা তত্বাবধায়ক জূলফা জাহান’র নেতৃত্বে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে হাসপাতাল এলাকার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পূনরায় হাসপাতাল ক্যাম্পাসে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালীতে দিমেক হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. জাহাঙ্গীর আলম সরকার, উপ-পরিচালক ডা. মোহাম্মদ আলী, সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) ডা. মো. আমির আলী, উপ-সেবা তত্বাবধায়ক মোছা. আমিনা খাতুন, মাধবী ভট্টাচার্য, নার্সিং সুপারভাইজার নুর নাহার, মোছা. শাহনওয়াজ বেগম, বিউটি আরা বেগম, মোছা. শিরিন আক্তার, মোছা. সাবিনা ইয়াসমিন, রওশন আরা, আসমাউল হুসনা, আয়শা ছিদ্দিকা, নার্সিং কর্মকর্তা মালতি কুজুর, মোছা. নুর জাহান বেগম, আঞ্জুমান আরা, খালেদা খানম, মো. আশরাফ আলী, অঞ্জলী রাণী, ফেন্সী আক্তার, হাসিনা খাতুন, জুবেরা কুমকুম, রওশন আরা, নাজমা খাতুন, মুসলেমা খাতুন, সাহেবুন নাহার, শামসুন নাহার, বিলকিস বানু, রশিদুল ইসলাম, মামুনুর রশিদ, সুজন রায়, সুমন বিশ্বাস, রওশন আরা বেগম, রোকেয়া খাতুনসহ অন্যান্য নার্সিং কর্মকর্তা অংশগ্রহন করেন।
র‌্যালী শেষে হাসপাতাল কনফারেন্স রুমে সেবা তত্বাবধায়ক জুলফা জাহান’র সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। নার্সিং কর্মকর্তা মোছা. রাকিবা খাতুন’র উপস্থাপনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. জাহাঙ্গীর আলম সরকার, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. মোঃ আমির আলী। পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন নার্সিং কর্মকর্তা শ্যামলী খাতুন, গীতা পাঠ করেন বেলী রাণী সরকার, বাইবেল পাঠ করেন অঞ্জনা রোজারিও, ফ্লোরেন্স নাইটিংগেল’র জীবনী পাঠ করেন জান্নাতুল ফেরদৌসী।
আলোচনা সভায় বক্তারা মহিয়সী নারী ফ্লোরেন্স নাইটিংগেল’র জীবনী থেকে শিক্ষা নিয়ে দরিদ্র-অসহায় মানুষের সেবায় নার্সদের এগিয়ে আসার আহবান জানান। বক্তারা বলেন, তার চেতনা ধারন ও লালন করতে হবে এবং সেই অনুযায়ী কাজ করতে হবে। সমাজে নার্সিং পেশাকে মানুষের কাছে একটি আদর্শ পেশা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে হবে। বক্তারা সেবার মানসিকতা ও আন্তরিকতা নিয়ে নার্সদের দায়িত্ব পালন করার আহবান জানান। তারা বলেন, নার্সিং পেশা একটি কঠিন ও স্পর্শকাতর পেশা। অনেক প্রতিকূলতার মধ্যে তাদের কাজ করতে হয়। এ কারণে খুবই সতর্কতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। এক সময় নার্সিং পেশা অবহেলিত থাকলেও বর্তমানে এই পেশার গুরুত্ব অনেক। এই পেশার গুরুত্ব অনুধাবন করে নার্সদের অসুস্থ্য ও পীড়িত রোগিদের পাশে দাড়াতে হবে। জনগণের আস্থা অর্জন করতে হবে। বক্তারা আরো বলেন, একজন নার্স রোগির কাছে সবচেয়ে বেশী সময় অবস্থান করে। কোন নার্স একজন রোগীর সাথে ভাল আচরন করলে তার রোগ অর্ধেক ভাল হয়ে যায়। এ জন্য মানব সেবায় নিয়োজিত সকল নার্সদের রোগীদের সাথে ভাল আচরন করার আহবান জানান বক্তারা। সভায় বক্তারা নার্সদের দ্বিতীয় শ্রেণির কর্মকর্তা করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান ও তাঁর দীর্ঘায়ূ কামনা করেন।
এ দিকে সকাল ৮টায় সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতাল ও সেবা ইনস্টিটিউট যৌথভাবে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়। র‌্যালীতে সিভিল সার্জন ডা. অমলেন্দু, সেবা ইনস্টিটিউটের ইন্সট্রাক্টর ইনচার্জ মিসেস আঞ্জুয়ারা বেগম, জেনারেল হাসপাতালের উপ-সেবা তত্বাবধায়ক মায়া রানী সেন, সুপারভাইজার হিরা লাল পাল, ব্রাদার মো. উইসুফ আলী, সেবা ইনস্টিটিউটের ইন্সট্রাক্টর শারমিন সাত্তার, মোছাঃ কোহিনুর বেগম, মোছাঃ জেরিনা খাতুন, মোছাঃ মোস্তফা বেগম, মোছাঃ রহিমা খাতুন, আলেজা বেগম, রোজিফা বেগম, পারভীন আরা বেগমসহ, জেনারেল হাসপাতালের অন্যান্য নার্স ও সেবা ইনস্টিটিউটের ছাত্রীরা অংশগ্রহন করেন। র‌্যালী শেষে সেবা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশন ইনস্টিটিউট অব নার্সিং সাইন্সসহ অন্যান্য নার্সিং ইনস্টিটিউট আন্তর্জাতিক নার্সেস দিবস উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনার আয়োজন করে।
উল্লেখ্য, ১৮২০ সালের ১২ মে ইতালীর ফ্লোরেন্স নামক শহরে ফ্লোরেন্স নাইটিংগেল জন্মগ্রহন করেন ও ১৯১০ সালের ১ আগষ্ট ৯০ বছর বয়সে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে প্রতিবছর বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও বিভিন্ন হাসপাতালে এ দিবসটি পালন করা হয়। -ডেস্ক