শিবু দাস, সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর২৪.কম) ১০ মাসের বৈবাহিক সম্পর্কের পর অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর ভিটেবাড়ী বিক্রির ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা কুক্ষিগত করে বিদেশ যাওয়ার প্রচেষ্টায় ঢাকাস্থ খান ট্রাভেলস এর মাধ্যমে জনশক্তি মন্ত্রণালয়ের স্মার্ট কার্ড প্রাপ্তির প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আগামী ১০ এপ্রিল রাত্রীতে ঐ প্রতারকের ফ্লাইট রয়েছে বলে জানা গেছে। প্রতারিত ফারজানা বেগম, দিনাজপুর নারী ও শিশু দমন ট্রাইবুনাল ও ফুলবাড়ী পারিবারিক আদালতে পৃথক পৃথক মামলা দায়ের করেছে।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, দিনাজপুর ফুলবাড়ি উপজেলার বারাই পাড়া রামনগর এলাকার মৃত মোকলেছার রহমানের কন্যার সাথে নবাবগঞ্জ উপজেলার আজমপুর গ্রামের জনৈক অয়েজ কুরুম মিয়ার পুত্র সুজন মিয়ার সাথে ২৯জুন ২০১৮ সালে ৩ লক্ষ টাকা দেন মোহরানা ধার্য্য করে উভয়পক্ষে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয় এবং বরপক্ষ উপঢৌকন স্বরূপ সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা নির্ধারণ হলে নগদে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা কন্যা পক্ষ বর পক্ষকে প্রদান করে। বাকি ২ লক্ষ টাকা কন্যার নিকট আদায়ের জন্য স্বাভাবিক সংসার জীবন যাপনের বাধা সৃষ্টি করে বর ও তার পারিবারিক পক্ষ। এর অংশ হিসেবে স্বামী তার স্ত্রীকে শারীরিক ও মানুষিক নির্যাতন বৃদ্ধি করতে থাকে এবং কন্যা তার বিধবা মাতা আর্থিক দৈন্যদশার কথা দীর্ঘ ৫ মাস থেকে প্রকাশ করতে থাকলেও বরপক্ষ কন্যাকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বহিস্কার করে। নিরুপায় হয়ে কন্যা তার বিধবা মাতার ভিটেবাড়ী প্রাপ্ত অংশ বিক্রয় করলে বর সুজন মিয়া বিক্রিত অর্থের আড়াই লক্ষ টাকা কুক্ষিগত করে গত ৫ মাস ধরে স্ত্রীকে বিধবা মায়ের বাড়ীতে ফেলে রেখে ও সম্পূর্ণ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রেখে বিদেশ যাওয়ার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে নিরুপায় হয়ে কন্যা ফারজানা বেগম নারী ও শিশু আদালত ও ফুলবাড়ী পারিবারিক আদালতে সংশোধিত/২০০৩ আইনের ১১(গ)/৩০ ধারা ও মোহরানা-ভরণ-পোষণ ডিগ্রি প্রার্থনা করে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি’১৯ এ মামলা আনয়ন করেন। মামলা নং-০৮/২০১৯ ও ১৭৭/২০১৯। বিজ্ঞ আদালত ০৫/০২/১৯ তারিখে বিচার বিভাগীয় তদন্তের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নবাবগঞ্জকে তদন্ত সম্পন্ন করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ প্রদান করেন।
জানা গেছে, নির্যাতিত গৃহবধু এ বিষয়ে দিনাজপুর২৪.কম এর মাধ্যমে প্রতারক স্বামী সুজন মিয়া যেন কোনক্রমেই বিচারাধীন মামলার আসামী বিদেশ গমন না করতে পারে এ জন্য বাংলাদেশ জনশক্তি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় সচিব মহোদয়ের সুদৃষ্টি আকর্ষণ করে সুষ্ঠু বিচারের দাবীতে মহামান্য আদালতের প্রতি আকুল আবেদন জানিয়েছেন।