স্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর টোয়েন্টিফোর ডটকম) করোনা  বিস্তাররোধে দিনাজপুর শহরের প্রাণ কেন্দ্রে থেকে প্রধান পাইকারি এবং খুচরা কাঁচাবাজার সরিয়ে নেওয়া বিকল্প স্থানে টোল আদায়কে কেন্দ্র করে আজ (বুধবার) সকালে হাতাহাতিতে খোকন এবং সাজ্জাদ নামে দুজন দোকানি আহত হয়েছে। এঘটনায় বেচাকেনা বন্ধ করে বিক্ষোভ করেছে ক্ষতিগ্রস্থ দোকানিরা। সংশ্লিষ্টদের সাথে আলোচনা শেষে অস্থায়ী বাজার থেকে সব ধরনের টোল আদায় বন্ধের আদেশ দেন জেলা প্রশাসক মাহমুুদুল আলম।

এতে খুশি হয়ে আগামীকাল সকাল থেকে আবারো দোকান খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আড়ৎদাররা। সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিতে গত গেল মাসে বাহাদুরবাজারের পাইকারি সব্জী বাজার জেলা স্কুল মাঠে এবং খুচরা বাজারসহ মাছ মাংসের দোকান গোর এ শহীদ বড় ময়দানে সরিয়ে নেয় জেলা করোনা মনিটরিং কমিটি।

এতে জনবহুল এলাকায় থেকে তুলনামূলক ফাঁকা স্থানে বাজার সরিয়ে নেওয়ায় কিছুটা নিরাপদে চলছিল দৈনন্দিন বেচাকেনা। অস্থায়ী ওইসব দোকান থেকে অতিরিক্ত হারে টোল আদায়কে কেন্দ্র করে বিরোধ দেখা দেয় (বাহাদুর বাজারে মুল) ইজাদারের মধ্যে। প্রতিকার চেয়ে এর আগে পুলিশসহ জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত নালিশ জানান আড়ৎদার সমিতির নেতারা।

অভিযোগের সুরাহা না পেয়ে আজ বুধবার সকাল থেকে দোকানপাটে বেচাকেনা বন্ধ রেখেছিল ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা। সকালে জোর করে দোকান খোলার চেষ্টা চালায় বাহাদুর বাজারের মূল ইজারাদারের লোকেরা। এসময় দুজন দোকানদার আহত হয়। এঘটনার বিচার চেয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করে প্রথমে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এবং শেষে পৌরসভার প্রবেশ পথে অবস্থান নেন তারা।

এসময় কোতয়ালী থানা পুলিশ এবং নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের মধ্যস্থতায় কর্মসূচি স্থগিত করেন তারা। আড়ৎদার সমিতির সাধারন সম্পাদক রুবেল ইসলাম দিনাজপুর টোয়েন্টি ফোর কে জানান, অস্থায়ী বাজারে সব ধরনের টোল আদায় বন্ধে জেলা প্রশাসকের কাঙ্খিত সিদ্ধান্ত নেওয়ায় আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দোকান পাট খুলবেন তারা।