(দিনাজপুর টোয়েন্টিফোর ডটকম)দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে এক সাংবাদিককে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ; ধরার জন্য তার ঘরের তালা ভেঙে ঢোকেন পুলিশ সদস্যরা।

বুধবার রাত রাত ১১টার দিকে ঘোড়াঘাট পৌর এলাকার খোদাদাদপুর কলোনিতে সাংবাদিক ইফতেখার আহমেদ বাবুর বাসায় যায় পুলিশ।

ভাইরাল হওয়া আট মিনিট ৩২ সেকেন্ডের একটি ভিডিওতে ইফতেখার আহমেদ বাবুর ঘরের তালা ভাঙতে দেখা যায়।ঘোড়াঘাট থানার ওসির নেতৃত্বে পুলিশ তার বাড়ির তালা ভাঙে বলে ইফতেখারকে বলতে শোনা যায় ভিডিওতে।

ইফতেখার ‘ডেল্টা টাইমস’ পত্রিকার ঘোড়াঘাট উপজেলা প্রতিনিধি।তাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে ঘোড়াঘাট থানার ওসি আজিম উদ্দিন জানান।

তিনি বলেন, ‘ভুয়া তথ্য প্রচারের’ কারণে তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পুলিশ বাদী মামলা দায়ের করেছে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে একটি মোটরসাইকেল চুরির মামলাও রয়েছে।

বাড়ির তালা ভেঙে গ্রেপ্তার করার বিষয়ে জানতে চাইলে ওসি আজিম উদ্দিন বলেন, “প্রথমে তাকে থানায় ডেকে পাঠানো হয়েছিল এবং পরে রাতে তার বাসায় গেলে সে বের না হয়ে পাল্টা প্রতিক্রিয়া করে পুলিশকে বিব্রত করতে ভিডিও করতে থাকে।”ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে ইফতেখারকে বলতে শোনা যায়, ঘোড়াঘাট থানার ওসির বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির সংবাদ প্রকাশ করার কারণে তাকে ওসিসহ কজন পুলিশ গ্রেপ্তার করতে খোদাদাদপুর কলোনির বাসায় আসে।

এই সময় লোহার দরজায় আঘাতের শব্দ শোনা যায়। নারী ও শিশুর কান্না শোনা যায়।

ইফতেখারের কণ্ঠে বারবার বলতে শোনা যায়, “আমি কী করেছি? আমার অপরাধ কী?”

পুরো ভিডিওতে তাকে প্রতিবাদ করতে শোনা যায়।

ওসি আজিম উদ্দিন আরও বলেন, সম্প্রতি ইফতেখারের ছোট ভাই বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা (উপজেলা আহ্বায়ক) ওয়াকার আহমেদ নান্নুকে গ্রেপ্তারের পর থেকে ফেইসবুকসহ বিভিন্নভাবে পুলিশের বিরুদ্ধে ‘অপপ্রচার’ চালাচ্ছিলেন ইফতেখার। -ডেস্ক রিপোর্ট