মো: আফজাল হোসেন. (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা আলাদীপুর ইউনিয়নের বারাই হাটে ব্রীডস অফিসে সন্ত্রাসী কর্তৃক হামলা লক্ষাধিক টাকা মালামাল লুট ব্রীডস এর নিবাহী পরিচালককে মারপিট থানায় অভিযোগ। বাংলাদেশ পল্লী অর্থনৈতিক উন্নয়ন সংস্থা ব্রীডস এর নিবাহী পরিচালক মো: আবুল হাসনাত এর লিখিত অভিযোগে জানা যায় গত ১৭ই এপ্রিল দুপুর ১টায় এলুয়াড়ী ইউনিয়নের স্বরর্তীপুর গ্রামে মৃত: আব্দুর রউফ এর পুত্র মো: হুমায়ূন (৩৫) আলাদীপুর ইউনিয়নের বারাই হাট গ্রামে মৃত: মুসা পুত্র মো:  আতাউর রহমান (৪০)  এলুয়াড়ী ইউনিয়নে স্বরর্তীপুর গ্রামে মৃত: আব্দুল রউফ পুত্র আবহানী (৩০) ও জাহাঙ্গীর (৪০) পার্বতীপুর উপজেলার আমবাড়ী অসুরকোট (শালাইপুর) গ্রামের মৃত: ওয়াহেদ মন্ডলের পুত্র মো: আকীবুর রহমান (৪২) একই গ্রামের মৃত: সাদেকুলের পুত্র মো: আবু বক্কর (শুকুরু) তারা দলবন্ধ হয়ে হাতে লোহার রড়, বাশের লাঠি নিয়ে উল্লেখ তারিখে তার কার্যালয়ে ঢুকে মারপিট করে হত্যার চেষ্টা করে আহত অবস্থায় এলাকার ইউপি সদস্য আব্দুর রাজ্জাক নিবাহী পরিচালককে উদ্ধার করে ফুলবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করান।  ১৭ই এপ্রিল বিষয়টি ফুলবাড়ী থানাকে তার লোকজন লিখিত ভাবে অভিযোগ করেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ফুলবাড়ীর থানার এসআই সামীম তদন্ত করেন। চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় তার কার্যালয়ে থাকা সমস্ত মালামাল লুট করে নিয়ে  যান এবং এলুয়াড়ী ইউনিয়নে মহিলা সদস্য দেলবাহারের কাছে জমা রাখেন। এদিকে ইউপি চেয়ারম্যান নবিউলের কাছে ইউপি মহিলা সদস্যা তিনি ঐ মালামাল গুলি চেয়ারম্যানকে বুঝিয়ে দেন। গত ২০ই এপ্রিল হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেন। ২২ই এপ্রিল উল্লেখ ব্যক্তিরা বারাই বাজারে সালিশ মিমাংসার জন্য ডাকেন। সেখানে তারা মিথ্যা মামলা দায়ের ও জেলহাজুতের ভয় দেখান। সন্ত্রসী চাঁদা বাজরা তার কাছে ২০ হাজার টাকা অবৈধ পাওনাদার হিসাবে দাবি করেন। তিনি ভয়ের কারণে ২০ হাজার টাকা দিতে রাজি হন। গত ২৩শে এপ্রিল ইউপি চেয়ারম্যান মো: নবীউল নিকট ৭ হাজার ৫০০ শত টাকা দেই। তার কাছে সংস্থার মালামাল চাইলে, তিনি বলেন, কোনো মালামাল আমার কাছে নাই। ইউপি সদস্যা ও ইউপি চেয়ারম্যান বিরুদ্ধে অভিযোগ করে তিনি বলেন তারা তাদের পক্ষ নিয়েছেন। ইউপি চেয়ারম্যান মো: নবীউল ইসলাম সংস্থার পরিচালকের কাছে ননজুডিশিয়াল স্টাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে সেখানে বলে তিনি নাকি কোন আইনী সহযোগিতা নিতে পারবেন না। ব্রীডস এর নির্বাহী পরিচালক মো: আবুল হাসনাত দীর্ঘ ১৯ বছর ধরে জেলার পার্বতীপুর, ফুলবাড়ী, চিরিরবন্দর, বিরামপুর সহ চারটি উপজেলায় ১১টি ইউনিয়ানে হত দরিদ্র জনগোষ্টির মাঝে বিভিন্ন জনকল্যানমূলক কাজ করে আসছেন। তিনি ন্যায় বিচার পেতে প্রধান মন্ত্রীসহ বিভিন্ন দপ্তরে এবং জেলা প্রশাসক বরাবর অনুলিপি প্রেরণ করেছেন। এদিকে গত কাল বুধবার উপজেলা এলুয়াড়ী ইউপি চেয়ারম্যান মো: নবীউল ইসলামের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি মোবাইল ফোনটি গ্রহন করেননি। ন্যায় বিচার পেতে তিনি প্রশাসনের দারে দারে ঘুরছেন।