দেলোয়ার হোসেন বাদশা, (দিনাজপুর২৪.কম) জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে বৃদ্ধকে রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে প্রতিপক্ষের লাঠিয়াল বাহিনী। আহত বৃদ্ধ দিমেক হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।  জানা গেছে, গত শুক্রবার সকাল সাড়ে আটটায় উপজেলার দক্ষিননগর মোল্লাপাড়ার মৃতঃ ছলিম উদ্দীনের পুত্র লোকমান হোসেন (৬০) বাড়ী হতে বাইসাইকেল যোগে বিন্যাকুড়ী বাজারে যাওয়ার পথে বাড়ীর পার্শ্ববর্তী বাঁশের সাঁেকার পাড়ে পৌছলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ওৎ পেতে থাকা একই গ্রামের প্রতিবেশী মৃত ফজলার রহমানের পুত্র মোজাফফর (৪২), লুৎফর (৪৪), মৃত কাছিম উদ্দীনের পুত্র নাজমুল তেলী (৩৫), জিয়াবুল (৩৭), ইদ্রিস আলীর পুত্র ফরহাদ (২৩), মৃত আকবর আলীর পুত্র হাসান (৩৭), মৃত ভোলা মোহাম্মদের পুত্র মোকছেদ (৫২), আফতাব উদ্দীনের পুত্র আজিজার (৪০), মৃত বেশারতের পুত্র মিজানুর (৩০) ও মৃত বদিউজ্জামানের পুত্র সিরাজুল (৫০)সহ ১৫/২০ জনের একটি দুর্বৃত্ত বাহিনী অতর্কিতভাবে রড ও লাঠি দিয়ে মারপিট শুরু করলে গুরুতর আহত হয়ে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে পড়ে যায়। এসময় স্থানীয় লোকজন দৌড়ে এসে তাকে উদ্ধার করে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়। হাসপাতালের সার্জারী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ রাজিব জানান, আহত লোকমানের মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে বড় ধরনের ইঞ্জুরি হয়েছে। তবে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে তার বেশ কিছুদিন সময় লাগবে। এলাকাবাসী মনজের, নজরুল, বীরেন্দ্র নাথ রায় জানান, দীর্ঘদিন ধরে লোকমানের সাথে ১২ বিঘা জমি নিয়ে তাদের বিরোধ চলছিল। জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে তাদের মাঝে স্থানীয় গণ্যমান্যদের নিয়ে বেশ কয়েকবার সালিশ বৈঠকে ইতিবাচক সিদ্ধান্তও হয়েছে। কিন্তু তারা (প্রতিপক্ষ) ওই সিদ্ধান্তকে না মেনে বাহুবলে জমি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। তাদের ধারনা এরই জের ধরে ওই ঘটনায় প্রতিপক্ষ ওইদিন বৃদ্ধ লোকমানকে আটক করে মারধর করেছে। আহত লোকমানের পরিবারের দাবী পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া ওই জমি দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে তারা ভোগদখল করে আসছে। হঠাৎ প্রতিপক্ষরা ভুয়া দলিল তৈরী করে জমি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। আহতের ঘটনায় এখন পর্যন্ত মামলা হয়নি তবে মামলার প্রস্ততি চলছে বলে আহত লোকমানের পরিবারের লোকজন জানিয়েছেন।