pumpkin-01

এম.এ.সালাম / মো. নূর ইসলাম নয়ন (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরে পেঁয়াজের মূল্য আকাশচুম্বী হওয়ায় কদর বেড়েছে পেঁপে এবং মিষ্টি কুমড়ার। সেই সাথে লাউ এর কদর বেড়েছে। বিভিন্ন হোটেল এবং রেস্তোয়ায় পেঁয়াজের বিকল্প হিসেবে এসব সবজি বাজার দখল করেছে। এটাই পেঁয়াজ হিসেবে খাচ্ছেন অনেকেই। বাঙ্গালী ঝোলের তরকারীতে অভ্যস্ত; তাই এখন তরকারীর ঝোল তৈরিতে পেঁয়াজের পরিবর্তে ব্যবহার হচ্ছে কাঁচা পেঁপে ও মিষ্টি কুমড়া। একারণে বাজারে কদর বেড়েছে পেঁপে, মিষ্টি কুমড়া এবং লাউয়ের। দিনাজপুরের বিভিন্ন হাট-বাজার ও দোকানগুলো ঘুরে জানা গেছে, দোকানীরা প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি করছে ২৪০-২৬০ টাকা দরে। আর পাতাসহ শীতকালীন নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১শ’ টাকা কেজি। কাঁচা বাজারের ব্যবসায়ী হেলাল হোসেন, আফাজ উদ্দিনসহ অনেকেই জানান, পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ার ফলে মিষ্টি কুমড়া, লাউ, পেঁপে, মুলা ও বাঁধা কপির দাম কমছে না। কারণ হিসেবে তারা বলেন, হোটেলসহ বিভিন্ন খাবারের দোকানে তরি-তরকারি রান্না করার জন্য পেঁয়াজের লাগামহীন দরে দিশেহারা খাবার দোকানীরা বর্তমান পেঁয়াজের পরিবর্তে মিষ্টি কুমড়া, লাউ ও পেঁপে ব্যবহার করছেন। আর পিঁয়াজু তৈরী ও চটপটিসহ মুখরোচক খাবারের সাথে সালাদ হিসাবে ব্যবহার হচ্ছে মুলা ও পেঁপে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক খাবার দোকানীরা জানান, পেঁয়াজের অসহনীয় দাম বৃদ্ধির কারণে পেঁয়াজের পরিবর্তে পেঁপে, মিষ্টি কুমড়া, মুলা ও বাঁধা কপি ব্যবহার করা হচ্ছে।
সাধারণ ভোক্তারা, দ্রব্যমুল্য বৃদ্ধিরোধে দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।