(দিনাজপুর২৪.কম)  দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে একই তারিখে দু’টি শাখায় লিখিত পরীক্ষার তারিখ ধার্য করায় ৩ সহস্ত্রাধিক চাকরী প্রার্থী লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি। লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিতে না পারায় বঞ্চিত পরীক্ষার্থী ওই পরীক্ষা বাতিল করে পুনরায় পরীক্ষা নেয়ার দাবী জানিয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ভুমি মন্ত্রনালয়ের ০৫-০৬-২০১৪ তারিখের ছাড়পত্রের নির্দেশনা অনুযায়ী দিনাজপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এস এ শাখায় লোক নিয়োগের জন্য গত ১৯-০৬-২০১৫ তারিখে লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে মোট কার্ড ইস্যু করা হয় ৮ হাজার ৫শ’। কিন্তু সংস্থাপন শাখায় পরীক্ষা দেয়ার কারণে এই শাখায় ২ হাজার পরীক্ষার্থী অংশ নিতে পারেননি। সাকুল্যে সাড়ে ৬ হাজার পরীক্ষার্থী এস এ শাখায় পরীক্ষায় অংশ নেয়।
অপরদিকে, জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের ৩ জুন ২০১৪ তারিখের ছাড়পত্রের নির্দেশনা অনুযায়ী দিনাজপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের অধীনস্থ অফিসসমূহে সংস্থাপন শাখায় পরীক্ষা নেয়া হয়। এতে মোট কার্ড ইস্যু হয়েছিল ১ হাজার ৮শ’। এই পরীক্ষায় মাত্র ৬৫০ জন অংশ নিতে সক্ষম হয়। এস এ শাখায় পরীক্ষা দেয়ার কারণে ১১৫০ জন পরীক্ষার্থী এই পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি। ফলে এ দু’টি পরীক্ষায় মোট ৩ হাজার একশ’ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিতে পারেননি।
একই দিনে একই সময়ে দু’টি পরীক্ষা কেন অনুষ্ঠিত হল সে বিষয়টি সবার অজানানা। তবে একটি সূত্র জানিয়েছে, এক বছর পূর্বে দরখাস্ত আহবান করার পর পরীক্ষা গ্রহণ কি এক অজ্ঞাত কারণে স্থগিত রাখা হয়। অবশেষে সরকারের চাপের মুখে তাড়াহুড়া পরীক্ষা নেয়ায় এই জটিলতার সষ্টি হয়। তাই এই দু’টি শাখায় নতুন করে লিখিত পরীক্ষা নেয়ার দাবী জানিয়েছেন বঞ্চিত পরীক্ষার্থীরা।  -(মাহবুবুল হক খান)